পড়াশোনাব্লগ

অনলাইন ক্লাস অনুচ্ছেদ রচনা

আপনি যদি অনলাইন ক্লাস সম্পর্কে অনুচ্ছেদ রচনা বাংলা অনুসন্ধান করেন তবে সঠিক জায়গায় এসেছেন। চলুন তাহলে এখান শুরু করা যাক।

সূচনা

বর্তমান সময়ে অনলাইন ক্লাস একটি জনপ্রিয় ধারণা। শিক্ষায় প্রযুক্তির ব্যবহার আমরা বহু আগে থেকেই লক্ষ্য করে আসছি। তবে সাম্প্রতিক সময় করোনা ভাইরাসের প্রকোপ বৃদ্ধিতে দেশে বিদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অনলাইন ক্লাসের উপর নির্ভর করে তাদের শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করছিলো। অনলাইন ক্লাসে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থী উভয়েরই সুবিধা অনুযায়ী ক্লাস নেয়া যায়। কারণ অনলাইন ক্লাস যেকোন জায়গায় শুধু মাত্র ইন্টারনেটের সাথে সংযুক্তির মাধ্যমে করা যায়।

অনলাইন ক্লাস কী / কিভাবে করে?

ইন্টারনেটের মাধ্যমে শিক্ষা-কার্যক্রম পরিচালনাই অনলাইন ক্লাস। এখন ঘরে বসে ইন্টারনেটের মাধ্যমে কোন প্লাটফর্ম থেকে কোন একটি শ্রেণির পাঠ অধ্যায়ন  করা সম্ভব হচ্ছে। বর্তমান অনলাইন ক্লাস প্লাটফর্ম হিসেবে জুম,মিটিং, ফেইসবুক, ইউটিউব ইত্যাদি খুবই জনপ্রিয়। বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা এসব প্লাটফর্মে ক্লাস নিয়ে থাকেন এবং শিক্ষার্থীরাও এর থেকে উপকৃত হচ্ছে।

অনলাইন ক্লাস করতে আপনার প্রয়োজন হবে ডেস্কটপ, ল্যাপটপ অথবা ১০ ভার্সনের একটি এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোন এর যে কোন একটি। সাধারণত বিভিন্ন ক্লাসের নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর অনলাইন ক্লাস নেয়া হয়ে থাকে। হতে পারে কোন শিক্ষক তার নিজ উদ্যোগে অনলাইন ক্লাস নিয়ে থাকেন। অথবা তিনি কোন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অধীনে ক্লাস নিয়ে থাকেন।

অনলাইন ক্লাসের উপকরণ সমূহ

অনলাইন ক্লাস করতে কি কি লাগবে তা এই যুগে এসে আমরা প্রায় সবাই-ই জানি। আগেই বলেছি অনলাইন ক্লাস করতে কি কি লাগে। এখন এগুলোর আলাদা বিশ্লেষণ করব।

অনলাইন ক্লাস নিতে বা করতে ডেস্কটপ,ল্যাপটপ বা এন্ড্রয়েড ফোনের প্রয়োজন হবে। যার সাথে ইন্টারনেট সংযোগ থাকবে। এর সাথে একটি মাইক্রোফোন,ওয়েব ক্যামেরা লাগবে।

ডেস্কটপ/ল্যাপটপ বা ফোনঃ 

এইসব ডিভাইসের মাধ্যমে শিক্ষক ও ছাত্র অনলাইনে যোগাযোগ স্থাপন করে ক্লাস নিয়ে থাকে। এত ছাত্র  সঠিক ভাবে আপনার কাংখিত বিষয়টি অনলাইনের মাধ্যমে অধ্যায়ন করতে পারে। কারণ এসব ডিভাইসের মাধ্যমেই আপনি ইন্টারনেটের মাধ্যমে ক্লাসে যুক্ত হবেন।

ওয়েব ক্যামঃ 

ওয়েব ক্যামটি ল্যাপটপ, ডেস্কটপের সাথে সেট করে ক্যামেরার মাধ্যমে সরাসরি ক্লাস নেয়া যাবে। কিন্তু মোবাইল ফোন দিয়ে ভিডিও করে কলে ক্লাস নিলে ওয়েব ক্যামের আর প্রয়োজন নেই। সে ক্ষেত্রে ক্লাস নেয়া বা করা একটু অসুবিধাজনক। তবুও কাজ চালানোর জন্য মোবাইল ফোনের ব্যবস্থা করা যেতে পারে।

মাইকঃ 

শিক্ষক যখন অনলাইনে ক্লাস নিবেন তখন মাইকের মাধ্যমে তা রেকর্ড হবে এবং ছাত্রদের কাছে যাবে। আবার ছাত্র হলে কোন প্রশ্ন করার ক্ষেত্রে তার মাইকটি কাজে লাগবে। কারণ মাইক ছাড়া বক্তব্য কেউ কারো কাছে পৌঁছাতে পারবেন না। তাই মাইক অনলাইন ক্লাসের জন্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ ডিভাইস।

অনলাইন প্লাটফর্মঃ 

অনলাইন প্লাটফর্ম বলতে আমরা ইউটিউব, ফেইসবুক,জুম,মিটিং,Google Duo  ইত্যাদি কে বুঝি। মূলত এসব প্লাটফর্ম এর মাধ্যমেই ক্লাস নেওয়া হয়। এই প্লাটফর্ম গুলোর মাধ্যমে ছাত্র শিক্ষকের সরাসরি যোগাযোগ ঘটে। তাই অনলাইন ক্লাসের জন্যে ইন্টারনেট প্লাটফর্ম গুলো গুরুত্বপূর্ণ।

স্থানঃ 

যদিও বলা হয়ে থাকে যেকোন জায়গা থেকে অনলাইন ক্লাস করা যায়। প্রকৃতপক্ষে ক্লাসের জন্যে একটি নিরিবিলি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন জায়গা নির্ধারণ করা উত্তম। কারণ শিক্ষক যদি কোলাহলপূর্ণ স্থান থেকে ক্লাস নিতে থাকেন তবে তা ছাত্রদের বুঝতে অসুবিধা সৃষ্টি করে।  আবার অপরিচ্ছন্ন অগোছালো জায়গা থেকে ক্লাস নিলে তা ছাত্রদের কাছে আপনার ইম্প্রেসমেন্ট নষ্ট করবে। অন্য দিকে,একজন ছাত্র হয়ে আপনি কোলহলপূর্ণ জায়গা থেকে ক্লাস করলে তা আপনার বুঝার অসুবিধা করবে। তাই অনলাইন ক্লাসের জন্যে জায়গা নির্ধারিত করা একটি জরুরি বিষয়।

Government Free Freelancing Course in Bangladesh

অনলাইন ক্লাসের অসুবিধা

প্রত্যেকটি বিষয়েরই সুবিধা ও অসুবিধা দুটি দিকই থাকে। তেমনি অনলাইন ক্লাসও ব্যতিক্রম না। দীর্ঘক্ষণ অনলাইন ক্লাস করায় অনেকের মাইগ্রেনের সমস্যা, চোখের সমস্যা দেখা দিতে পারে। এছাড়া দীর্ঘক্ষণ ইয়ার ফোন কানে লাগিয়ে ক্লাস করাও কানের জন্যে ক্ষতিকর। তাই আপনি পছন্দের বিষয় শিখবেন ঠিকাছে কিন্তু তা রুটিন মাফিক স্বাস্থ্যের ক্ষতি না করে করুন। যাতে করে আপনার দু দিকই রক্ষা পায়। এছাড়া বর্তমানে অনলাইন ক্লাস নির্ভর হয়ে যাওয়াতে অনেক শিক্ষার্থী বই ভিত্তিক পড়ায় মনোযোগ ফিরিয়ে আনতে ব্যর্থ হচ্ছে। তাই দীর্ঘ সময় অনলাইন ক্লাস নয়।

শেষ কথা

প্রযুক্তি আমাদের জীবনে আশীর্বাদ স্বরূপ। অনলাইন ক্লাস তার উদাহরণ। এখন অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে আমরা ঘরে বসেই ক্লাস করতে ও করাতে পারছি। অনলাইন ক্লাসের মাধ্যমে কঠিন বিষয় সহজ হচ্ছে। এখন ঘরে বসে অভিজ্ঞ শিক্ষদের পাঠ গ্রহণ করা সম্ভব বিনা খরচে। তাই বলা যায় প্রযুক্তির এই আশীর্বাদ আমাদের খুশি মনে গ্রহণ করা উচিত এবং এর সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করা আমাদের কর্তব্য।

ওহে বন্ধু! অনলাইন ক্লাস সম্পর্কে অনুচ্ছেদ রচনা সম্পূন্য বাংলা ভাষায় পড়ে আপনার কেমন লেগেছে তা আমাদের কমেন্ট বক্সে জানাতে ভুলবেন না।  নিয়মিত  প্রযুক্তি বিষয়ক পোষ্ট পেতে ভিজিট করুন Technical blog Site

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button