আন্তর্জাতিক

বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর নিয়ম (ভিডিও সহ)

সাধারণত আমরা ইন্দোনেশিয়া থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠায়। কারন আমাদের দেশ থেকে বহু সংখ্যক মানুষ ইন্দোনেশিয়া দেশে অবস্থান করছে। এ কারণে তারা প্রতিবছর ইন্দোনেশিয়া থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠায়। এই কারণে ইন্দোনেশিয়া থেকে বাংলাদেশে টাকা পাঠানোর নিয়ম আমাদের সকলের জানা রয়েছে। তবে বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে অনেকে অবগত নয় তাই এই আর্টিকেলে (ভিডিও সহ) আমরা বিস্তারিত আলোচনা করতে যাচ্ছি।

তবে খুব কম সংখ্যক মানুষ আমরা বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়ায় টাকা পাঠাই। এই কারণে আমাদের বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়ার টাকা পাঠানোর নিয়ম সঠিক জানা নেই। এজন্য আজকের আর্টিকেলে আমরা বাংলাদেশ থেকেই ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করব। আশা করি,আজকের আর্টিকেল মনোযোগ সহকারে পড়বেন। তাহলে বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া বৈধ উপায় টাকা পাঠাতে পারবেন। 

বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর নিয়ম

আমাদের হয়তো অনেকের বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর কখনো দরকার হয় নি। এই কারণে আমাদের মাঝে বেশিরভাগ মানুষ বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে অবগত নয়। তবে বর্তমান সময়ে আমরা বিভিন্ন কারণে ইন্দোনেশিয়া অবস্থান করি। বিশ্বাস করে চিকিৎসার জন্য আমাদের দেশ থেকে প্রচুর সংখ্যক মানুষ ইন্দোনেশিয়া যায়। 

শুধু চিকিৎসার জন্য নয় বিভিন্ন মানুষ ভ্রমণ করার জন্য ইন্দোনেশিয়ায় গিয়ে থাকে। যখন কেউ ইন্দোনেশিয়া চিকিৎসা বা ভ্রমণ করার জন্য যায়। তখন বিশ্বাস কারণে অনেকের টাকা দরকার হয়ে থাকে। তখন ইন্দোনেশিয়া অবস্থানরত সেই মানুষ কোথায় টাকা পাবে। 

এই জন্য অবশ্যই তাকে নিজস্ব দেশ থেকে ইন্দোনেশিয়ায় টাকা পাঠাতে হবে। কিন্তু যারা বাংলাদেশ থেকে কিভাবে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠাতে হয় তা জানে না। আজকের আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনি এই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যাবেন। চলুন বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর নিয়ম সমূহ জেনে নেই। 

বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর উপায়

বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর একতম নির্ভরযোগ্য মাধ্যম হলো ব্যাংকিং। আপনি বাংলাদেশের সরকারি বেসরকারি যেকোনো ব্যাংক থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠাতে পারবেন। কিন্তু বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর কিছু সীমাবদ্ধতা রয়েছে। 

ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর জন্য সবচেয়ে নিরাপদ মাধ্যম হলো,বাংলাদেশ ব্যাংক কতৃক অনুমোদিত ব্যাংক থেকে টাকা বা ইন্দোনেশিয়া মুদ্রায় পরিবর্তীত করে পাঠানো। তাছাড়াও কিছুু অনলাইন ব্যাংকিং , বিকাশ এর মাধ্যমেও আপনি ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানো যায়,তবে এটা একটু কম নিরাপদ।

আর যারা কর ফাঁকি দিয়ে হুন্ডির মাধ্যমে টাকা পাঠায় সেটা সবচেয়ে বেশি অনিরাপদ। যেকোন সময় টাকা মার যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এখানে অস্বিকার করলে কিছুই করার থাকে না। এমনকি আইনত কোন সাহায্যও পাওয়া যাবে না,কারন এটা অবৈধ। এমনকি আইনতম শাস্তি পাওয়া সম্ভবনা রয়েছে।

আবার আদান-প্রদানকারী ব্যাক্তি দুইজনেরই যদি পেওনিয়ার ও মাস্টার কার্ড থাকে। তাহলে বিশ্বের প্রায় ২০০টি দেশে টাকা লেনদেন করা যাবে। তার মধ্যে ইন্দোনেশিয়া দেশ রয়েছে।বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া আবার ইন্দোনেশিয়া থেকে দেশ সবরকম লেনদেন করা যাবে। ইন্দোনেশিয়া সব ব্যাংক থেকে সেই টাকা উত্তলন করা যাবে। বুথ থেকেও উত্তোলন করা যাবে। আবার কার্ড এর মাধ্যমেও খরচ করা যাবে।

বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া বৈধভাবে টাকা পাঠানোর অন্যতম উপায় চিকিৎসার জন্য ও বিদেশগামী ছাত্রদের স্টুডেন্ট ফিস জমা দেয়ার জন্য বাংলাদেশ ব্যংকের অনুমোতি সাপেক্ষে নির্দিষ্ট কয়েকটি ব্যাংকের মাধ্যমে ডলার পাঠানো যায়। আর ব্যাবসার জন্য এল.সি খোলা যায়। এর বাইরে যারা বিদেশে টাকা পাঠায় তারা অবৈধ হুন্ডির মাধ্যম ব্যবহার করে। 

প্রিয় পাঠক আপনি এই আর্টিকেলে পড়ছেন বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর নিয়ম সম্পর্কে। আর্টিকেলটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ুন যাতে আপনি বিস্তারিত এই বিষয় নিয়ে জানতে পারেন।

বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানো সঠিক নিয়ম কি

বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়ার টাকা পাঠানোর আরেকটি ডিজিটাল উপায় হল রেমিট্যান্স কার্ডের মাধ্যমে। রেমিট্যান্স কার্ডের মাধ্যমে লেনদেনকে বাংলাদেশ ব্যাংক অলটারনেটিভ পেমেন্ট চ্যানেল হিসেবে সার্কুলারে করেছে। সার্কুলারে ইন্দোনেশিয়া পড়াশোনার ফি, চিকিৎসা ব্যয়, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের ব্যয়, কোনো সদস্য ফি, ভর্তি, পরীক্ষা, আবেদন ও রেজিস্ট্রেশেন ফি, টিকেটের টাকা, ভিসা ও ল্যান্ডিং ফি, প্রশিক্ষণ, কর্মশালা ও সেমিনারসহ ১১ খাতের ফি পরিশোধের সুযোগ রাখা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। 

অর্থাৎ যে সকল ব্যক্তি বাংলাদেশ থেকে এই ইন্দোনেশিয়া গিয়ে পড়াশোনা ও চিকিৎসা খাদে টাকা ব্যয় করবে। তাদের যদি টাকার প্রয়োজন হয় তাহলে খুব সহজে রেমিট্যান্স কার্ডের মাধ্যমে টাকা পাঠানো যাবে। উপরোক্ত ১১টি খাত ছাড়া অন্যান্য কোন খাদে বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানো যাবে না। 

এছাড়াও যাদের মাস্টার কার্ড আছে তারাও ইন্দোনেশিয়ার অনেক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে লেনদেন করতে পারবেন। তবে বাংলাদেশের বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে একবারে ৩০০ ডলারের বেশি অর্থ ইন্দোনেশিয়া পাঠানো যায় না। আর যাদের মাস্টার কার্ড নেই তারা তো বিদেশে লেনদেনই করতে পারেন না। এই সমস্যার সমাধান করতেই নতুন সার্কুলার জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। যার নাম হল রেমিট্যান্স কার্ড।

নতুন নিয়ম অনুসারে, গ্রাহকরা বাংলাদেশ ব্যাংকে গিয়ে ব্যাংকের কাছে টাকা জমা দিয়ে নির্দিষ্ট ফরম পূরণ করে ব্যাংকের রেমিট্যান্স কার্ডের মাধ্যমে টাকা বিদেশে পাঠাতে পারবে। ফলে বিদেশের কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির টাকা, টিউশন ফি প্রদান, বিদেশের গবেষণা প্রতিবেদন পড়ার জন্য এবং এরকম আরো কয়েকটি প্রয়োজনে টাকা রেমিট্যান্স কার্ডের মাধ্যমে দেয়া যাবে। যা আগে মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে অথবা কোন ব্যাংকের মাধ্যমে দেয়া যেত না।

রেমিট্যান্স কার্ডের মাধ্যমিক সবথেকে বেশি সুবিধা হয়েছে বাংলাদেশ থেকে সে সকল শিক্ষার্থী ইন্দোনেশিয়ার দেশে পড়াশোনা করছে। শুধু ইন্দোনেশিয়ার নয় রেমিট্যান্স কার্ডের মাধ্যমে আপনি বিশ্বের সকল দেশেই বাংলাদেশ থেকে টাকা পাঠাতে পারবেন। এটা বর্তমান সময়ের যুগ উপযোগী একটি প্রক্রিয়া। যে প্রক্রিয়ার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই বাংলাদেশ থেকে অন্যান্য দেশে টাকা পাঠাতে পারবেন। প্রিয় পাঠক আশাকরি এতক্ষণে আপনি বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর নিয়ম (Rules for sending money from Bangladesh to Indonesia) সম্পর্কে সম্যক ধারণা আমাদের সাইটে পেতে সক্ষম হয়েছেন চলুন তবে এবার কত টাকা পাঠানো যেতে পারে এ সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক। 

বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া কত টাকা পাঠানো যাবে

বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর জন্য অবশ্যই আপনাকে স্টুডেন্ট বা চিকিৎসা খাতে সেই টাকাগুলো খরচ করতে হবে। রেমিট্যান্স কারের মাধ্যমে আপনি বাংলাদেশ থেকে ইচ্ছা মত টাকা ইন্দোনেশিয়া পাঠাতে পারবেন। টাকা পাঠানোর ক্ষেত্রে কোন সীমাবদ্ধতা নেই। কিন্তু আপনাকে অবশ্যই উপরোক্ত ১১টি খাতে সেই টাকাগুলো ব্যয় করার তালিকা দিতে হবে। 

পরিশেষে কিছু কথা

বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানোর নিয়ম (ভিডিও সহ) সম্পর্কে আজকের টিউটোরিয়াল এখানেই শেষ করছি। বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়ায় টাকা পাঠানোর অনেকগুলো মাধ্যম রয়েছে। সবগুলো মাধ্যম আপনাদের সামনে আলোচনা করা হয়েছে। তবে সবথেকে নিরাপদ ও বৈধ উপায় হল রেমিট্যান্স কার্ডের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠানো।

আবার অনেকে সহজ পদ্ধতির মাধ্যমে অবৈধভাবে বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠায়। আপনি যদি এরকম অবৈধ বাংলাদেশ থেকে ইন্দোনেশিয়া টাকা পাঠাতে চান তাহলে আপনার টাকা মার যাওয়ার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকবে। এই কারণে এরকম কোন চিন্তাভাবনা না করে অবশ্যই বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিট্যান্স কার্ডের মাধ্যমে ইন্দোনেশিয়ায় টাকা পাঠাতে পারেন।

ভিডিওতে দেখুন

ভিডিও দেখতে এখানে চাপুন

Back to top button