ব্লগ

প্রিজাইডিং অফিসারের কাজ, দায়িত্ব ও কর্তব্য

দেশের স্থানীয় ও জাতীয় নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসারের কাজ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একজন সৎ যোগ্য, দায়িত্বপরায়ণ  প্রিজাইডিং অফিসারের উপর  সুষ্ঠু নির্বাচন অনেকটাই নির্ভর করে। প্রিজাইডিং  অফিসার নিয়োগ হয় সরাসরি নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে। তাই সৎ, যোগ্য, দায়িত্ব পরায়ণ প্রিজাইডিং অফিসার নিয়োগের বিষয়টি নিশ্চিত করতে হয় সর্তকতার সাথে। আজকে আলোচনা করব প্রিজাইডিং অফিসারের কাজ, দায়িত্ব ও কর্তব্য ইত্যাদি বিষয়ে। 

প্রিজাইডিং অফিসারের কাজ

দেশের স্থানীয় ও জাতীয় নির্বাচনে কেন্দ্রের সকল দায়িত্ব থাকে প্রিজাইডিং অফিসারের উপর। তার অধিনে কাজ করে, সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসার সহ অন্যান্যরা। প্রিজাইডিং অফিসার ভোটকেন্দ্রের নিয়ম শৃঙ্খলা বিধান করবেন। সুষ্ঠ নির্বাচনের জন্য সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। ভোট কার্য পরিচালনা করবেন।

ভোট গ্রহণে যদি কোনভাবে নিরপেক্ষতা ক্ষুণ্ন হয় তবে তা তিনি রিটার্নিং অফিসার বা সহকারি রিটার্নিং অফিসারকে জানাবেন৷ প্রিজাইডিং অফিসারের কাজে তাকে সর্বাত্মক সহায়তা করবে সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার, পোলিং অফিসার ও সহকারি পোলিং অফিসার। সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার সেই সকল দায়িত্ব কর্তব্য পালন করবেন যা কমিশন কর্তৃক বা প্রিজাইডিং অফিসার কর্তৃক প্রদান করা হবে। 

ভোটের দিন যদি কোন কারণে যেমন অসুস্থতা জনিত কারণে প্রিজাডিং অফিসার অনুপস্থিত থাকেন তাহলে রিটার্নিং বা সহকারি রিটার্নিং অফিসার সহকারি প্রিজাইডিং অফিসারদের মধ্য থেকে একজনকে প্রিজাইডিং অফিসার নিয়োগ করবেন এবং তার উপর দায়িত্ব অর্পণ করবেন। 

ভোট গ্রহণ চলাকালিন সময় কেবল রিটার্নিং অফিসার যে কোন প্রিজাইডিং অফিসার কিংবা পোলিং অফিসারকে উপযুক্ত কারণ দেখিয়ে বরখাস্ত করতে পারেন এবং তার স্থলে দায়িত্ব পালনের জন্যে  তাহার প্রয়োজনমত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারবেন। অনিবার্য কারণে কেন্দ্রের ভোট স্থগিত করতে পারেন একজন প্রিজাইডিং অফিসার। 

একজন ভোটার ভোট কেন্দ্রে প্রবেশের পর তার বায়োমেট্রিক পরিচয় প্রদান করবেন ফিঙার প্রিন্ট প্রদানের মাধ্যমে। যদি তার আঙুলের ছাপ ইবিএম মেশিন দ্বারা নিশ্চিত না হয় তবে স্মার্ট  জাতীয় পরিচয় পত্র যাচাইয়ের মাধ্যমে নিশ্চিত হতে হবে। এরপর প্রিজাইডিং অফিসার তার আঙুলের ছাপ দিয়ে অনুমতি দিলে ভোটার তার ভোট প্রদান করতে পারবেন। ভোটের দিন উচ্চশব্দে কেউ প্রচার প্রচারণা করলে, বাদ্য-বাজনা বাজালে তা দমন করা প্রিজাইডিং অফিসারের কাজ। 

মূলত ভোট কেন্দ্রে সুষ্ঠ ভাবে ভোট গ্রহণ হচ্ছে কিনা,সকল সহকারি প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসার সঠিক ভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করছেন কিনা তা দেখা। কোন অনিয়ম হচ্ছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ করবেন এবং রিটার্নিং অফিসারকে জানাবেন। ভোট কেন্দ্রে অনেক সময় মারামারি, কেন্দ্র দখল করার মত ঘটনা ঘটে থাকে৷ সেসব দক্ষতার সাথে দমন করা এবং উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া প্রিজাডিং অফিসারের কাজ। এভাবে একটি কেন্দ্রে সুষ্ঠু ভোট গ্রহণের সকল কাজ একজন প্রিজাইডিং অফিসার করে থাকেন৷ 

আপনি পড়ছেন প্রিজাইডিং অফিসারের কাজ, দায়িত্ব ও কর্তব্য সম্পর্কে। আরো পড়ুন:

Read More:   প্রিজাইডিং অফিসার হওয়ার যোগ্যতা

Government Free Freelancing Course in Bangladesh

প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব ও কর্তব্য

যা আমাদের উপর অর্পণ করা হয় এবং অবশ্য পালনীয় তা আমাদের দায়িত্ব আর যা আমরা নিজের বিবেকের দ্বারা কোন কিছুর সুষ্ঠুতা বিধানের জন্য করি তা হলো কর্তব্য। একটি কেন্দ্রে যখন প্রিজাইডিং অফিসার নিয়োগ করা হয় তখন তাকে নির্দিষ্ট কিছু দায়িত্ব অর্পণ করা হয়। যা পালন করা তার কর্তব্য হয়।  অর্থাৎ এই সকল দায়িত্ব নিষ্ঠার সাথে পালন করাই হলো তার কর্তব্য। 

একজন প্রিজাইডিং অফিসারের মূল দায়িত্ব কেন্দ্রে ভোটের সুষ্ঠুতা নিশ্চিত করা৷ এর জন্য কমিশন কর্তৃক নির্দেশিত কাজ যেমন করতে হয় তাকে তেমনি তিনি নিজের বিবেচনার দ্বারাও কাজ করেন। একটি কেন্দ্রে ভোটাররা লাইন মোতাবেক দাঁড়াচ্ছেন কিনা তা আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং পোলিং অফিসারের সহায়তায় নিশ্চিত করেন প্রিজাইডিং অফিসার। 

ভোট কেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসার ও আইনশৃঙ্খলায় নিয়োজিত ব্যক্তি ছাড়া কেউ যোগাযোগের জন্যে মোবাইল ফোন ব্যবহারের অনুমতি পাননা। তাই কেউ তা করছে কিনা তা নিশ্চিত করা তার দায়িত্ব। সকল সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসারের কাজ পর্যবেক্ষণ করা প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব।  কোন রকম অনিয়ম, জাল ভোট হচ্ছে কিনা তা লক্ষ্য রাখা প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব। 

যদি কোন পোলিং অফিসার কিংবা সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার তার দায়িত্বে অবহেলা করে অথবা  দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয় তাহলে তাকে অপসারণ করে প্রার্থীর সাথে সরাসরি জড়িত না এমন যে কোন ব্যক্তিকে তার স্থলে নিয়োগ করে নিরপেক্ষতা নিশ্চিত করা প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব। 

আরো পড়ুন: পোলিং অফিসারের কাজ কি

এছাড়া ভোট গ্রহণের সময় ভোট কেন্দ্রে কতজন ভোটার একসাথে প্রবেশ করবে তা কমিশন কর্তৃক নির্ধারিত করা হয়ে থাকে এবং সে অনুযায়ী প্রবেশ নিশ্চিত করা প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব। ভোটকেন্দ্রে কোন ব্যক্তি অযথা প্রবেশ করলে তাকে বের করে দেয়া এবং সে যদি কোন অনিয়ম করে তাহলে তাকে আইনের আশ্র‍য়ে এনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব। 

কেন্দ্রে কোনরকম অনিয়ম হচ্ছে কিনা তার যথাযথ ব্যবস্থাপনা করা প্রিজাইডিং অফিসারের কর্তব্য। হলে তা দক্ষতার সাথে দমন করা তার দায়িত্ব। যদি তিনি কোন প্রার্থীর পক্ষপাতি হয়ে তার দায়িত্বে অবহেলা করেন তবে তা নীতি বিরুদ্ধ কাজ। এরূপ না করে সততার সাথে তাকে তার সকল দায়িত্ব পালন করতে হবে। যা তার কর্তব্যের মধ্যে পড়ে। সর্বপরি একটি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহণের সময় তা সুন্দর ও সততার সাথে পালন করাই একজন প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব এবং কর্তব্যের মধ্যে পড়ে৷ 

শেষ কথা

সৎ যোগ্য প্রার্থী নির্বাচনে জনগণের যেমন ভূমিকা রয়েছে তেমনি একটি কেন্দ্রে সততার সাথে ভোট পরিচালনা করতে পারেন একজন প্রিজাইডিং অফিসার। তাই একজন প্রিজাইডিং অফিসারেরও  উচিত তার উপর ন্যাস্ত প্রজাতন্ত্রের দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন করা। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button