জীবনধারা

অল্প পুজির ব্যবসা করার ৫ টি আইডিয়া

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন, যারা ব্যবসা করতে চায়। আর ব্যবসা করার জন্য প্রধান যে বিষয় গুলোর প্রয়োজন হয়। সেগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো মূলধন। কারণ ব্যবসা করার জন্য অবশ্যই আপনার নিকট মূলধন থাকতে হবে। তবে এই মূলধনের পরিমাণ একেক জনের কাছে একেক রকমের হয়ে থাকে। হয়তোবা কারো কাছে এই মূলধনের পরিমাণ অনেক বেশি হয়ে থাকে। আবার কারো কারো কাছে এই মূলধনের পরিমাণ অনেক কম হয়ে থাকে। যেসব মানুষের কাছে ব্যবসা করার জন্য অনেক কম পরিমাণ মূলধন রয়েছে। সেই মানুষ গুলো বেশিরভাগ সময় অল্প পুঁজির ব্যবসা করতে চায়। আর সেই মানুষ গুলো কে উদ্দেশ্য করেই আজকের এই আর্টিকেল টি লেখা হয়েছে।

কারণ আজকের এই আর্টিকেলে আমি চমৎকার কিছু অল্প পুঁজির ব্যবসা করার আইডিয়া শেয়ার করব আপনার সাথে। যদি আপনি খুব স্বল্প পরিমাণ টাকা ব্যয় করে ভালো কিছু একটা ব্যবসা করতে চান। তাহলে আজকের এই আর্টিকেল টি আপনার জন্য অনেক বেশি হেল্পফুল হবে। সত্যি কথা বলতে আজকে আমি আপনাকে এমন কিছু অল্প পুঁজির ব্যবসা করার আইডিয়া দিব। আপনি যদি এই আইডিয়া গুলো কে সঠিক ভাবে অনুসরণ করতে পারেন। এবং এই আইডিয়া গুলো কে কাজে লাগাতে পারেন। তাহলে কিন্তু আপনি এই অল্প পুজির ব্যবসা থেকে অনেক বড় একটা বেনিফিট লাভ করতে সক্ষম হবেন। 

আর বর্তমান সময়ে আপনার মত এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা মূলত এই ধরনের ব্যবসায়িক আইডিয়া থেকে। অল্প পুঁজির ব্যবসার মাধ্যমে প্রচুর পরিমাণ টাকা আয় করতে সক্ষম হয়েছে। তাই আপনি যদি এই অল্প পুঁজির ব্যবসার মাধ্যমে নিজের জন্য একটা বড় কিছু একটা করতে চান। তাহলে চেষ্টা করবেন আজকের পুরো আর্টিকেল টি মনোযোগ সহকারে পড়ার। তাহলে আর দেরি না করে চলুন সরাসরি মূল আলোচনায় ফিরে যাওয়া যাক।

অল্প পুজির ব্যবসা করার আইডিয়া

আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ আছেন। যারা মূলত অল্প পুঁজির ব্যবসা করতে চায়। সত্যি বলতে আপনি যদি ব্যবসা করার আইডিয়া গুলো কে সঠিক ভাবে রপ্ত করতে পারেন। তাহলে কিন্তু আপনি স্বল্প পুঁজির ব্যবসা থেকে ভালো পরিমাণ বেনেফিট লাভ করতে সক্ষম হবেন। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য, যখন আমাদের নিকট ব্যবসা করার জন্য খুব কম পরিমাণ পুঁজি থাকে। তখন কিন্তু আমরা ব্যবসা করতে ভয় পাই। অথচ আপনি একটু ভালো ভাবে তাকালেই দেখতে পারবেন যে। আপনি যেখানে স্বল্প পুঁজির ব্যবসা করতে ভয় পাচ্ছেন। সেখানে কিন্তু অনেকেই তাদের খুব কম পরিমাণ মূলধন দিয়ে ব্যবসা শুরু করে আজকে নিজেকে সফল ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত করতে পেরেছে।

 

আমি স্বীকার করছি যে ব্যবসা করার জন্য অবশ্যই আপনার নিকট পুঁজির প্রয়োজন হবে। কিন্তু ব্যবসা করার জন্য আপনার নিকট এই পুঁজির পরিমাণ অনেক বেশি হতে হবে, বিষয়টা কিন্তু এমন নয়। বরং আপনার নিকট অনেক কম টাকা দিয়েও আপনি ভালো কিছু ব্যবসার আইডিয়া কে কাজে লাগাতে পারবেন। এবং আপনার পছন্দমত একটি ব্যবসা শুরু করে দিতে পারবেন। আর সেই ব্যবসা গুলো আসলে কি কি এবার আমি সেগুলো নিয়ে ধাপে ধাপে আলোচনা করব। 

০১- চায়ের দোকান করুন

যদি আপনি ভালো কোন অল্প পুঁজির ব্যবসা খুঁজে থাকেন। তাহলে আমি আপনাকে সরাসরি চায়ের দোকান শুরু করার পরামর্শ দিব। আপনি হয়তো বা রাস্তাঘাটে চলার সময়, সেই রাস্তার পাশে অনেক চায়ের দোকান দেখতে পারবেন। এবং আপনিও অধিকাংশ সময়ে সেই চায়ের দোকান গুলো থেকে চা খেয়ে থাকবেন। কিন্তু আপনি কি কখনো ভেবে দেখেছেন যে, সেই দোকান গুলো থেকে কি পরিমান টাকা লাভ করা যায়! যদি আপনি না জেনে থাকেন তাহলে আমি আপনাকে বলছি যে। এটি হলো ছোটখাটো একটা ব্যবসা করার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত একটি আইডিয়া। যে আইডিয়া কে কাজে লাগিয়ে আপনি খুব কম পরিমাণ পুঁজির মাধ্যমে এই ব্যবসাটি শুরু করে দিতে পারবেন।

০২- পোশাক তৈরির ব্যবসা

আপনার পরিবারে যদি অনেক মানুষ থাকে, তাহলে আপনি আপনার সেই পারিবারিক মানুষ গুলো কে কাজে লাগিয়ে। চমৎকার একটি ব্যবসা শুরু করে দিতে পারেন। আর সেই ব্যবসার আইডিয়া টি হল পোশাক তৈরি করার ব্যবসা। আপনি চাইলে খুব অল্প পরিমাণ টাকা খরচ করে বিভিন্ন ধরনের পোশাক তৈরী করতে পারবেন। যেমন, লুঙ্গি, শাড়ি, গামছা, পাঞ্জাবি ইত্যাদি। এবং এই সব পোশাক নিজে নিজে তৈরি করে আপনি সেগুলো কে বাজার জাত করতে পারবেন। আর এই ধরনের পোশাক তৈরির ব্যবসা থেকে আপনি খুব ভালো পরিমাণ টাকা আদায় করে নিতে পারবেন।

০৩- মোবাইল রিচার্জ ও বিকাশের ব্যবসা

বর্তমান সময়ে মোবাইল ব্যবহারকারীর সংখ্যা ক্রমাগত ভাবে বেড়ে চলেছে। সেই সাথে বাড়ছে মোবাইল রিচার্জ এবং মোবাইল ব্যাংকিং এর ব্যবহারকারীর সংখ্যা। আর সেই সুযোগ কে কাজে লাগিয়ে আপনি শুরু করে দিতে পারেন মোবাইল রিচার্জ ও বিকাশের ব্যবসা। কারণ আজকের দিনের অধিকাংশ মানুষ বিকাশের মাধ্যমে টাকা লেনদেন করে থাকে। আর আপনি যদি ভাল কোন জনবহুল স্থান নির্বাচন করার পর। সেখানে বিকাশের ব্যবসা শুরু করে দিতে পারেন। তাহলে কিন্তু আপনি সেখান থেকে বেশি পরিমাণ টাকা আয় করতে পারবেন।

০৪- খাবার তৈরি করার ব্যবসা

আজকের দিনে এই ব্যবসার ব্যাপক পরিমাণে জনপ্রিয়তা রয়েছে। কারণ বর্তমান সময়ে মানুষের ব্যাস্ততায় এত বেশি বেড়ে গিয়েছে। যার কারণে তারা নিজের ঘরে সে রকম মুখরোচক খাবার গুলো তৈরি করতে পারে না। সেই কারণে এই ধরনের খাবার গুলো তারা বাইরে থেকে কিনে খায়। আর আপনি যদি তাদের এই খাবার এর অভাব পূরণ করে দিতে পারেন। তাহলে কিন্তু আপনি এই ব্যবসা থেকে খুব সহজেই অধিক লাভ করে নিতে পারবেন। 

তবে সেজন্য আপনার এ ধরনের মুখরোচক খাবার তৈরি করার অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। তাহলে কিন্তু মানুষ আপনার থেকে খাবার কিনে নিবে। এবং আপনি আপনার তৈরি করা খাবার গুলো তাদের কাছে বিক্রি করে এই অল্প পুঁজির ব্যবসা থেকে লাভবান হতে পারবেন।

০৫- কফি শপের ব্যবসা

যদি আপনি এই শহর কিংবা শহরের আশেপাশে থাকেন। তাহলে আপনার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত একটি ব্যবসা হলো কফি শপের ব্যবসা। কেননা দূর-দূরান্ত থেকে আসা মানুষের জন্য চলন্ত রাস্তার পাশে যদি আপনি কফিশপের ব্যবস্থা করেন। তাহলে কিন্তু আপনি অনেক বেশি পরিমাণে কাস্টমার সংগ্রহ করতে পারবেন। আর এই ধরনের কফি শপের ব্যবসা তে আপনি যদি অধিক পরিমাণ কাস্টমার সংগ্রহ করতে পারেন। তাহলে কিন্তু আপনি অনেক বেশি পরিমাণে লাভ করতে পারবেন। আর এই ধরনের কফি শপের ব্যবসা গুলো অল্প পুঁজির মাধ্যমে করা সম্ভব।

অল্প পুজির ব্যবসা নিয়ে কিছু কথা

প্রিয় পাঠক, যদি আপনি কোন অল্প পুঁজির ব্যবসা খুঁজে থাকেন। তাহলে চেষ্টা করবেন আজকের আলোচিত আইডিয়া গুলো অনুযায়ী কাজ করার। কারণ আজকে আমি আপনাকে জনপ্রিয় কিছু অল্প পুঁজির ব্যবসা সম্পর্কে ধারণা দিয়েছি। আর আপনি যদি এই আইডিয়া গুলো কে কাজে লাগাতে পারেন। তাহলে কিন্তু আপনি খুব কম পরিমাণ পুঁজির মাধ্যমে অনেক ভালো একটা ব্যবসা শুরু করে দিতে পারবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button