সরকারী সেবা

Nid Card নিয়ে অজানা প্রশ্নের উত্তর

আপনি যদি একজন বাংলাদেশের নাগরিক হয়ে থাকেন। তাহলে অবশ্যই আপনি একটি বিষয় খুব ভালোভাবে জেনে থাকবেন যে। এই বাংলাদেশে বসবাস করার জন্য আপনাকে এই দেশের নাগরিক হিসেবে Nid Card ব্যবহার করতে হবে। কারন আপনার কাছে থাকা ব্যক্তিগত এই Nid Card টি আপনার এদেশে বসবাস করার বৈধতা প্রদান করবে। আর সে কারণেই মূলত যখন বাংলাদেশের জন্ম গ্রহন করা কোন একজন নাগরিকের 18 বছর পূর্ণ হয়। ঠিক তখনই কিন্তু সেই নাগরিক তার ব্যক্তিগত জাতীয় পরিচয় পত্র এর জন্য আবেদন করতে পারবে। আর যখন আপনার নিকট একটি জাতীয় পরিচয় পত্র থাকবে। তখন আপনি এই দেশে বৈধ ভাবে বসবাস করতে পারবেন।

তবে আমাদের মধ্যে এমন অনেক মানুষ রয়েছেন। যাদের মনে এই Nid Card সম্পর্কিত বিভিন্ন ধরনের প্রশ্ন রয়েছে। তবে এমন কিছু প্রশ্ন রয়েছে, যে গুলো আপনি আসলে গুগলে সার্চ করার পরেও সঠিক উত্তর খুঁজে পাবেন না। কারণ সেই প্রশ্ন গুলো এমন ধরনের, যে প্রশ্ন গুলোর উত্তর এখন পর্যন্ত বাংলা ব্লগ বা ওয়েব সাইট গুলো তে প্রকাশ করা হয়নি। আর সে কারণেই মূলত আমি সেই প্রশ্ন গুলো কে সংগ্রহ করেছি। এবং বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন অফিস এর মূল ওয়েবসাইট থেকে সেই প্রশ্ন গুলোর সঠিক সমাধান খুঁজে নেয়ার চেষ্টা করেছি। আর আজকের আর্টিকেলে আমি সেই প্রশ্নের উত্তর গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করব।

তো আপনার মনে যদি Nid Card সম্পর্কিত কোন ধরনের প্রশ্ন থাকে। তাহলে আজকের এই আর্টিকেল টি আপনার জন্য অনেক বেশি হেল্পফুল হবে। কারণ আজকে আমি সেই সব প্রশ্ন গুলোর উত্তর দিব। যে প্রশ্ন গুলো আপনারা অধিকাংশ সময় গুগলে সার্চ করে থাকেন। এবং সেই প্রশ্ন গুলো গুগলে সার্চ করার পরেও আপনারা সেগুলোর সঠিক উত্তর খুঁজে পান না। তবে আপনি যদি সেই উত্তর গুলো সম্পর্কে সঠিক ভাবে জেনে নিতে চান। তাহলে আপনাকে আজকের পুরো আর্টিকেল টি মনোযোগ সহকারে পড়তে হবে। হয়তোবা এই আর্টিকেল এর মাধ্যমে আপনি আপনার Nid Card সম্পর্কিত সকল অজানা বিষয় গুলোকে জেনে নিতে পারবেন।

Q. আমার Nid Card টি হারিয়ে গেছে এখন আমার করনীয় কি?

যদি কোন দুর্ঘটনাবশত আপনার প্রয়োজনীয় জাতীয় পরিচয় পত্র টি হারিয়ে যায়। সেক্ষেত্রে আপনাকে বেশ কিছু কাজ করতে হবে। কেননা আপনি যদি আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র টি হারিয়ে ফেলেন। এবং সেটি যদি কোন অসৎ ব্যক্তির হাতে চলে যায়। তাহলে কিন্তু সেই ব্যক্তি আপনার অনেক বড় ধরনের ক্ষতি করে ফেলতে পারে। সেজন্য প্রথমত আপনি আপনার নিকটস্থ থানায় গিয়ে একটা সাধারণ ডায়েরি করবেন। এর পরবর্তী সময়ে আপনাকে হারিয়ে যাওয়া জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য অনলাইনে পুনরায় আবেদন করতে হবে। যদি আপনি অনলাইনে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য রি ইস্যু করেন। তাহলে আপনি পরবর্তী 7 থেকে 10 কার্যদিবসের মধ্যেই আপনার হারিয়ে যাওয়া জাতীয় পরিচয় পত্র টি জেনারেট করে নিতে পারবেন।

Q. জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন করার জন্য কত টাকা ফি হিসেবে দিতে হয়?

কোন কারণে যদি আপনার ব্যক্তিগত জাতীয় পরিচয় পত্র দেওয়া তথ্যের মধ্যে ভুল থাকে। তাহলে কিন্তু আপনাকে সেই ভুল গুলো সংশোধন করে নিতে হবে। তো এই সময়ে আসলে আমাদের অনেকের মনে প্রশ্ন জেগে থাকে যে। জাতীয় পরিচয় পত্র সংশোধন করার জন্য কত টাকা দেয়ার প্রয়োজন পড়ে। আর আপনার মনে যদি এই ধরনের প্রশ্ন জেগে থাকে। তাহলে আমি আপনাকে বলবো যে, আপনি আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের থাকা ভুল তথ্য কে সংশোধন করার জন্য। সর্বমোট 230 টাকা রকেট অথবা অন্যান্য ব্যাংকিং পদ্ধতিতে পরিশোধ করতে পারবেন।

Read More:   NID দিয়ে কয়টি সিম রেজিস্ট্রেশন হয়েছে

Q. আমি এখনো ভোটার হইনি কিভাবে নতুন ভোটার হওয়ার জন্য আবেদন করব?

যদি আপনার বয়স 18 বছর হয়ে থাকে এবং আপনি যদি এখন পর্যন্ত ভোটার না হয়ে থাকেন। তাহলে আপনি খুব সহজেই নতুন ভোটার হওয়ার জন্য আবেদন করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে আপনাকে বেশ কিছু ডকুমেন্টস এর প্রয়োজন পড়বে। যেমন, আপনার একাডেমিক সার্টিফিকেট, জন্ম নিবন্ধন এর সনদ, প্রত্যয়ন পত্র সহ স্থানীয় নির্বাচন কমিশন অফিসে যেতে হবে। কিংবা আপনি আপনার নিকটস্থ ইউনিয়ন পরিষদ অথবা উপজেলা পরিষদে যেতে হবে। এবং সেখানে গিয়ে আপনি আপনার যাবতীয় ডকুমেন্ট গুলো জমা দিবেন। আর তারপরে আপনাকে কি কি করতে হবে, সেটা সেখান থেকেই জেনে নিতে পারবেন।

Q. হারিয়ে যাওয়া জাতীয় পরিচয় পত্রের জন্য থানায় জিডি করতে কত টাকা লাগে?

যদি কোন কারণে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র টি হারিয়ে যায়। তাহলে কিন্তু তাৎক্ষণিক ভাবে আপনাকে আপনার নিকটস্থ থানায় জিডি করতে হবে। আর যখন আপনি এই ধরনের জিডি করবেন। তখন আপনাকে কোন প্রকার টাকা দিতে হবে না। অর্থাৎ আপনি একবারে বিনামূল্যে জিডি করতে পারবেন।

Q. আমি ভুল করে একাধিক জায়গায় আমার এনআইডি এর জন্য আবেদন করেছি। এখন কি করতে হবে?

যদি আপনি ভুল করে একাধিক জায়গায় আপনার ভোটার তথ্য দিয়ে থাকেন। এবং এনআইডি কার্ডের জন্য আবেদন করে থাকেন। তাহলে কিন্তু আপনাকে খুব দ্রুততার সাথে নির্বাচন কমিশন অফিসে যেতে হবে। এবং সেখানে গিয়ে আপনাকে যে কোনো একটি জায়গা নির্বাচন করে দিতে হবে। যেখান থেকে আপনি আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র তৈরি করতে চান। এবং এর পরবর্তী যে জায়গা গুলো থাকবে, সেগুলো আপনাকে ডিএক্টিভ অথবা রিমুভ করে দিতে হবে।

Q. আমার জাতীয় পরিচয় পত্রের ছবি পরিবর্তন করব কিভাবে?

কোনো কারণবশত আপনি যদি আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রে থাকা ছবি পরিবর্তন করতে চান। সেক্ষেত্রে আপনাকে অনলাইনের মাধ্যমে 230 টাকা পেমেন্ট করতে হবে। যখন আপনি পেমেন্ট করবেন তার পরবর্তীতে আপনার মোবাইল নম্বরে এসএমএস এর মাধ্যমে আপনাকে জানিয়ে দেওয়া হবে যে কবে আপনাকে নির্বাচন কমিশন অফিসে আসতে হবে। এবং এই পেমেন্ট এর একটি কপি প্রিন্ট করার পর সেটি নিয়ে আপনাকে নির্বাচন কমিশন অফিসে যেতে হবে। তারপর পুনরায় আপনাকে নির্বাচন কমিশন অফিসে গিয়ে ছবি তুলতে হবে। আর তার পরবর্তী সময় আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে।

Read More:   ভোটার তথ্য যাচাই করার উপায় 2022

Q. আমার বিবাহ বিচ্ছেদ হওয়ার পরে পুনরায় আবার বিয়ে করেছি। এখন আমাকে কি করতে হবে?

আপনি যদি বিয়ে করেন এবং বিয়ে করার পরে আপনার যদি বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। সে ক্ষেত্রে আপনাকে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রে থাকা স্বামী কিংবা স্ত্রীর নাম পরিবর্তন করে নিতে হবে। আর আপনি যদি এই কাজটি করতে চান। তাহলে আপনাকে অনলাইনের মাধ্যমে বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন অফিস এর মূল ওয়েবসাইটে গিয়ে আবেদন করতে হবে। এবং আপনার কাবিননামা সহ সেই আবেদন ফরম টি সঠিক ভাবে পূরণ করে নিতে হবে।

Q. জাতীয় পরিচয় পত্রের রক্তের গ্রুপ ভুল আসলে কি করবেন?

কোন কারনে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রে যদি রক্তের গ্রুপ ভুল আসে। সেক্ষেত্রে আপনাকে পুনরায় রক্ত পরীক্ষা করতে হবে। এবং সেই রক্ত পরীক্ষার সনদপত্র টি নিয়ে আপনাকে পুনরায় নির্বাচন কমিশন অফিসে যেতে হবে। এবং সেখানে গিয়ে আপনাকে সংশোধন করতে হবে।

Nid Card নিয়ে কিছু কথা

প্রিয় পাঠক, আমাদের অনেকের মনে Nid Card নিয়ে নানা ধরনের প্রশ্ন রয়েছে। কিন্তু সে প্রশ্ন গুলোর উত্তর এখন পর্যন্ত গুগলে সঠিক ভাবে পাওয়া যায়না। আর সে কারণেই মূলত আমি আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আপনাকে সেই সব প্রশ্নের উত্তর জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছি। আশা করি আজকের এই আর্টিকেল থেকে আপনি অনেক বেশি উপকৃত হয়েছেন। আর আপনি যদি এরকম উপকারী তথ্য সম্পর্কে জেনে নিতে চান। তাহলে অবশ্যই আমাদের সাথে থাকবেন।

Nironjon Roy

হ্যালো পাঠক, আমি Roy. আমি দীর্ঘদিন থেকে বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং এর কাজ করে আসছি। আমি যথাযথ চেস্টা করি নিজের জ্ঞানটুকু অন্যের মাঝে বিলিয়ে দেয়ার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button