স্বাস্থ

চোখের ছানি দূর করার ঘরোয়া উপায় এবং ড্রপ

আপনি যদি অনুসন্ধান করেন চোখের ছানি দূর করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে তবে জেনে নেন আপনি সঠিক জায়গায় এসেছেন। পাশাপাশি আলোচনা থাকবে চোখের ছানি দূর করার ড্রপ সম্পর্কে।

‘Cataract’ ইংরেজি শব্দটির বাংলা অর্থ হলো ছানি। যা চোখের একটু বিশেষ অবস্থা। চোখের ল্যান্সে অস্বচ্ছ ঘোলা হয়ে দেখতে অসুবিধার সমস্যা কেই বলা হয় ছানি পড়া। যা বয়োবৃদ্ধদের একটি সাধারণ  চোখের সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এছাড়া যেকোন বয়সের যে কারোই হতে পারে ছানি। তাই আজকে জানবো চোখের ছানি অপারেশন,  নানা কারণ, লক্ষণ এবং এর থেকে উত্তোরণের উপায় সম্পর্কে।

চোখের ছানি কেন হয়

বিশেষত এটি বয়োবৃদ্ধ দের হয়ে থাকে বেশি তবে এর বেশ কিছু কারণ রয়েছে। যেমন,মানসিক আঘাত, বিকিরণের প্রভাব,চোখের কোন অপারেশন হয়ে থাকলে,বংশের পূর্বতন কারো ছানি হয়ে থাকলে। এছাড়া মদ বা তামাক গ্রহণ,ডায়াবেটিস এর সমস্যা থাকলে ও দীর্ঘ সময় রোদে কাজ করলে এই সমস্যার সমুক্ষিণ হতে হয়। যা থেকে নিরাময়ে এক সময় চোখের ছানি অপারেশন করার প্রয়োজন হয়ে পড়তে পারে। তবে চিন্তা নেই চোখের ছানি দূর করার ঘরোয়া উপায় ও এর মাঝে বের হয়ে গেছে।

চোখের ছানি পড়ার লক্ষণ

ছানি পড়লে চোখে ঝাপসা দেখা সাধারণ লক্ষণ, এর বাইরে চোখে ছানি পড়লে রঙ বিবর্ণ দেখা, রঙের চারপাশে বলয় দেখতে পাওয়া,উজ্জ্বল আলোতে সমস্যা হওয়া, বিশেষত রাতে দেখতে বেশি সমস্যা হতে পারে,এছাড়া অনেক সময় চোখের সামনে কালো কিছু নড়াচড়া করা বা সরে সরে যাচ্ছে দেখা ছানি পড়ার লক্ষণ।

Read More:   গ্যাস্ট্রিক দূর করার ঘরোয়া উপায়

চোখের ছানি দূর করার ঘরোয়া উপায়

চোখের ছানি অপারেশন করতে হয় তবে অনেক ক্ষেত্রে দেয়া হয় ড্রপ। সহজ কিছু অভ্যাস চোখে ছানি পড়া থেকে বাঁচাতে পারে আমাদের। এর জন্যে রোদে যেতে রোদ চশমা ব্যবহারের অভ্যাস করতে হবে। খেতে হবে সবুজ শাক সবজি ও চোখের জন্যে প্রয়োজনীয় খাবার।

এছাড়া ধূমপান,মদ পানের বাজে অভ্যাস থাকলে তা  অবশ্যই ত্যাগ করতে হবে৷ ডায়াবেটিস আক্রান্ত রোগীরা চেষ্টা করবে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে। এখানে ঘরোয়া পদ্ধতিতে চোখের ছানি দূর করার উপায় হিসেবে ব্যাক্তিগত কিছু প্রচেষ্ঠাকে জোর দেওয়া হয়েছে। 

চোখের ছানি দূর করার ড্রপ

ছুরি-কাঁচিতে ভয়? যে কারণে দ্বিধা? ভাবছেন, অস্ত্রোপচার করাবেন কি না? ছানি কাটাতে আসছে চোখের ড্রপ। বিজ্ঞানীরা বলছেন, কয়েক ফোঁটা ড্রপ চোখে দিলেই ছানি পরিষ্কার। চোখের ছানি দূর করার ড্রপ যদি কাজ হয়, খামোখা কাটাছেঁড়ার প্রয়োজন কী? এটা ও একধরণের চোখের ছানি দূর করার ঘরোয়া উপায়।

জানেন নিশ্চয়ই, পৃথিবীতে অন্ধত্ব বা দৃষ্টিহীনতার অন্যতম কারণই হল চোখে ছানি। এ-ও জানেন, এ পর্যন্ত দুনিয়ার যেখানে, যে হাসাপাতাল বা ক্লিনিকে যান, ছানি কাটাতে হয়। অস্ত্রোপচার ছাড়া বিকল্প নেই। তার পরেই চোখে লেন্স পরিয়ে দেওয়া হয়। এই অস্ত্রোপচারের বিকল্প হিসেবেই বাজারে আসতে চলেছে এই আই ড্রপ।

ক্যালিফোর্নিয়া ইউনিভার্সিটির মলিকিউলার বায়োলজিস্ট লিং ঝাও ও তাঁর সহযোগীরা এই আই ড্রপটি আবিষ্কার করেছেন। সেক্ষেত্রে যেই সেই ড্রপ নয় অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তার এর পরামর্শ নিয়ে চোখের ছানি দূর করার ড্রপ ব্যবহার করবেন।

Read More:   গর্ভবতী হওয়ার প্রথম সপ্তাহের লক্ষণ সমূহ জানুন

চোখের ছানি অপারেশন

ছানি হলে তা চিকিৎসার মাধ্যমেই প্রতিকার করা সম্ভব। তার জন্যে প্রাথমিক অবস্থায় দেয়া হয় ড্রপ৷ যেহেতু ছানি ধীরে ধীরে বাড়ে তাই ডাক্তারের পর্যবেক্ষণে থাকতে হয় এবং তার পরামর্শ অনুযায়ী ড্রপ ব্যবহার করতে হয়।

ড্রপে কাজ না হলে পরবর্তীতে চোখের ছানি অপারেশন এর কাজ করতে হয়। ছানির তিন ধরনের অপারেশন হয়।
যেমনঃ ফ্যাকো, SICS,ECCE।

ফ্যাকো

এই চিকিৎসা কিছুটা ব্যয়বহুল, তবে বর্তমানে এটি খুবই জনপ্রিয় কারণ এটি প্রযুক্তি নির্ভর। সূক্ষ্মতার সাথে অত্যান্ত দামি ফ্যাকো মেশিন দিয়ে এটি করতে হয় তাই দক্ষতার প্রয়োজন রয়েছে যার কারণে এর ব্যয় বেশি। এর দ্বারা অপারেশনের সুবিধা হলো চোখে সেলাই দিতে হয় না,খুব ছোট ছিদ্রের মাধ্যমে ছানি অপসারণ করা হয় এবং কৃত্রিম ল্যান্স লাগানো হয়। ফ্যাকো করালে অপরেশন পরবর্তী ঝক্কি ঝামেলাও কম।

SICS

এই পদ্ধতিতেও কাটা স্থানে সেলাই দিতে হয় না।
এই পদ্ধতিতে চোখের সাদা অংশ কেটে সেই পথ দিয়ে টেনে চোখের ছানি বের করে আনা হয়। তারপর কৃত্রিম ল্যান্স লাগিয়ে দেয়া হয়। খুব ছোট করে কাটা হয় এবং ভালব রাখা হয় বলে এখানে সেলাইয়ের প্রয়োজন হয় না।

ECCE

এই পদ্ধতিতে কাটা স্থান সেলাই দিয়ে আটকে দেয়া হয়। কৃত্রিম ল্যান্স লাগানোর আগে চোখের কর্নিয়া ও সাদা অংশের মাঝে কেটে ছানি বের করে আনা হয়।

ছানি অপারেশনের পর সতর্কতা

ফ্যাকো সার্জারি ছাড়া যেকোন অপারেশন পদ্ধতি পরবর্তী সময়ে কাছে দেখার জন্যে চশমা ব্যবহার করতে পারে। এর বাইরে চোখের ছানি অপারেশনের পর সতর্কতা হিসেবে নিম্নোক্ত কথ্য গুলো মেনে চলা উচিৎ:

  • কালো চশমা ব্যবহার।
  • ডাক্তার কাছে দেখার জন্যে চশমা দিলে তা নিয়ম মাপিক ব্যবহার করা।
  • অন্তত ৭ দিন চোখে সরাসরি পানি না দেয়।
  • ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ গ্রহণ।
  • অপারেশনের পরের দিন,  ৭ দিন পর এবং ১ মাস ডাক্তারের শরণাপন্ন হওয়া।
  • যেকোন অসুবিধা হলে অবশ্যই দ্রুত ডাক্তারের কাছে যাওয়া।

উপসংহারঃ আশাকরি আপনি চোখের ছানি দূর করার ঘরোয়া উপায় সম্পর্কে পড়ে নিয়েছেন। ছানি একটি সাধারণ সমস্যা কিন্তু অবহেলায় তা জটিল হতেও সময় নেয় না। তাই বাড়তে না দিয়ে যখনই অসুবিধা হবে ডাক্তার দেখানো উচিত। ছানি থেকে বাঁচতে নিয়মিত চোখের যত্ন নিন ও ভিটামিন এ যুক্ত খাবার খান।

এই পোষ্টটি পড়ে যদি আপনার ভালো লাগে তবে এ সম্পর্কিত আরো পোষ্ট পড়ুন স্বাস্থ ক্যাটাগরীতে । আপনার মূল্যবাণ সময়ের জন্য ধন্যবাদ।

Back to top button