উচ্চ মাধ্যমিক পড়াশোনা

বিলাসী গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর (কমন উপযোগী)

বিলাসী গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর ২০২১ সহ

আপনি কি উচ্চ মাধ্যমিক বাংলা পরীক্ষা প্রস্তুতির জন্য আপনি সিলেবাস ভূক্ত পাঠ্য অনলাইনে অনুসন্ধান করছেন? তবে এই পোষ্টটি আপনার জন্য। যারা এখনো পর্যন্ত বই কিনে নি আমি মনে করি তাদের জন্য এই প্রশ্নের উত্তর গুলো এক ধাপ উপকার বয়ে আনবে।  কারণ এই আর্টিকেলে আমি আপনার সাথে শেয়ার করতে যাচ্ছি বিলাসী গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর ২০২২ (কমন উপযোগী) বিষয়াবলী। চলুন তবে প্রশ্নোত্তর গুলো পড়ে নেওয়া যাক।

বিলাসী গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন নম্বর ১

কেউ মালা, কেউ তসবি গলায়,
তাইতে কী জাত ভিন্ন বলায়,
যাওয়া কিংবা আসার বেলায়
জেতের চিহ্ন রয় কার রে ॥

ক. কামাখ্যা কিসের জন্য বিখ্যাত?
খ. “স্বদেশের মঙ্গলের জন্য সমস্ত অকাতরে সহ্য করিয়া তাহাকে হিড়হিড় করিয়া টানিয়া লইয়া চলিলাম।”- ব্যাখ্যা কর।
গ. উদ্দীপকটি বিলাসী’ গল্পের কোন দিকটিকে নির্দেশ করে? ব্যাখ্যা কর।
ঘ. “উদ্দীপকটি বিলাসী’ গল্পের আংশিক ভাবের প্রতিনিধিত্ব করে।”- মন্তব্যটি বিশ্লেষণ কর।

আপনি এই আর্টিকেলে পড়ছেন বিলাসী গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন উত্তর নিয়ে। উপরোক্ত অনুচ্ছেদে আপনি দেখতে পাচ্ছেন সৃজনশীল প্রশ্নের প্যাটার্ন কেমন হতে পারে। চলুন তবে উত্তর সমাধান PDF আকারে দেখে নেওয়া যাক।

সৃজনশীল প্রশ্ন নম্বর ১ এর উত্তর সমূহ

ক উত্তরঃ কামাখ্যা তান্ত্রিক সাধক ও উপাসকদের তন্ত্রমন্ত্র সাধনার জন্য বিখ্যাত।

খ উত্তরঃ উদ্ধৃত উক্তিটিতে স্বার্থান্ধ-কুসংস্কারাচ্ছন্ন গ্রামবাসীর সাপুড়েকন্যা বিলাসীর ওপর আক্রমণের কারণ সম্পর্কে ইঙ্গিত করা হয়েছে। তৎকালীন সমাজ মৃত্যুঞ্জয়-বিলাসীর প্রেম ও সেবা করার বিষয়টি কোনােভাবেই মেনে নিতে পারেনি। কায়স্থের ছেলে মৃত্যুঞ্জয়ের সাপুড়েকন্যা বিলাসীর হাতে রান্না করা ভাত খাওয়াকে অন্নপাপ, এবং জাত যাওয়ার মতাে ঘটনা হিসেবে সাব্যস্ত করে।

এক সন্ধ্যায় দশ-বারােজনের একটি দল অতর্কিতে বিলাসীর ওপর হামলা চালায়। অসুস্থ মৃত্যুঞ্জয়ের কোনাে কথাই তারা শােনে না। তারা বীরদর্পে হুঙ্কার দিয়ে বিলাসীকে হিড়হিড় করে টেনে বাইরে নিয়ে যেতে থাকল। এ সবই তারা করেছিল ধর্ম ও গ্রামের মুখ রক্ষার অজুহাতে। নিচু জাতের বলে তারা বিলাসীর প্রতি এমন ন্যক্কারজনক ঘটনা ঘটিয়েছিল।

সারকথা : কুসংস্কারাচ্ছন্ন গ্রামবাসীর বিলাসীর ওপর করা অত্যাচার প্রসঙ্গে উক্তিটি করা হয়েছে।

গ উত্তরঃ  উদ্দীপকটি বিলাসী’ গল্পের জাতিগত বিভেদের দিকটিকে নির্দেশ করে। | পৃথিবীতে সব মানুষের জন্মপরিচয় এক, তা হলাে মানুষ। কিন্তু আত্মস্বার্থে তারা পরস্পরকে হিংসা করে। জন্মের পরে মানুষ স্বার্থের কারণে বিভিন্ন জাতিতে বিভক্ত হয়ে পড়ে। অথচ এটাই সত্যি যে, পৃথিবীতে কেউ কারও শত্রু নয়, সবাই বন্ধু। এই বােধে মানুষ হিসেবে সবাইকে মানবিক ও দায়িত্বশীল হতে হবে।

উদ্দীপকে মানবধর্মের কথা বলা হয়েছে। একেক ব্যক্তি একেক ধর্মের অনুসারী হতেই পারে তাতে ক্ষতি নেই। কিন্তু সবার একটাই পরিচয়, আর তা হলাে তারা সবাই মানুষ । কারণ সবার জন্ম-মৃত্যু রহস্য এক ও অভিন্ন। জন্ম-মৃত্যুর মতাে সত্যের কাছে কোনাে জাতিভেদের অস্তিত্ব থাকে না।

বিলাসী’ গল্পে বিলাসী অসুস্থ মৃত্যুঞ্জয়ের সেবা করে তাকে সুস্থ করে তােলে। মৃত্যুঞ্জয় এর প্রতিদানে বিলাসীকে বিয়ে করে। কিন্তু সমাজ এ বিষয়টিকে স্বীকৃতি দেয় না। কারণ বিলাসী নিচু জাতের, আর মৃত্যুঞ্জয় উঁচু জাতের। এ কারণেই বিলাসীর ওপর নির্মম অত্যাচার চালানাে হয়। শুধু জাতিগত বৈষম্যের কারণেই বিলাসীকে মৃত্যুঞ্জয়ের কাছ থেকে আলাদা করার চেষ্টা করা হয়। তাদেরকে সমাজ ছাড়তে বাধ্য করা হয়। এভাবে উদ্দীপকটি বিলাসী’ গল্পের জাতিগত বিভেদের দিকটিকে নির্দেশ করে। 

সারকথা : উদ্দীপকে জাতিভেদের অসারতার কথা বলা হয়েছে। অন্যদিকে ‘বিলাসী’ গল্পেও লেখক জাতিভেদের দিকটি তুলে ধরে এর অসারতা বা ভিত্তিহীনতার প্রতি ইঙ্গিত করেছেন।

প্রিয় পাঠক বিলাসী গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর ২০২২ সম্পর্কিত এই আর্টিকেলের পাশাপাশি  আমাদের সাইটে আপনাদের সিলেবাস ও পাঠ্য সম্পর্কিত আরো প্রশ্নোত্তর খুঁজে পাবেন। চলুন বাকী অংশ পড়ে নেওয়া যাক।

ঘ উত্তরঃ “উদ্দীপকটি বিলাসী’ গল্পের আংশিক ভাবের প্রতিনিধিত্ব করে।” মন্তব্যটি যথার্থ । পৃথিবীতে সব মানুষ সমান। সবারই সমান অধিকার আছে। তাই এ পৃথিবীকে সুন্দর বাসযােগ্য করে তুলতে হলে জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে মানুষে মানুষে সৌহার্দ-সম্প্রীতি গড়ে তুলতে হবে।

উদ্দীপকে জাতিভেদের অসারতা তুলে ধরা হয়েছে। ধর্ম আলাদা হলেও সবার পরিচয় একটাই, আর তা হলাে— সবাই মানুষ। কারণ জাতিভেদ সৃষ্টি করা হলেও জন্ম ও মৃত্যুর ক্ষেত্রে এই ভেদাভেদের কোনাে স্থান নেই। বিলাসী’ গল্পে জাতিভেদের এ রূপটিই স্পষ্ট হয়ে ফুটে উঠেছে।

মৃত্যুঞ্জয় মুমূর্ষ অবস্থায় পড়ে থাকলে বিলাসী সেবা-যত্ন করে তাকে সুস্থ করে তােলে। এক পর্যায়ে তারা ভালােবেসে বিয়ে করে। সমাজ এই বিয়ে মেনে নিতে পারে না। কারণ বিলাসী নিচু জাতের সামান্য সাপুড়ের মেয়ে। ফলে তাদের ওপর নির্যাতন চালানাে হয় এবং তাদের গ্রাম ছাড়তে বাধ্য করা হয়। কিন্তু তারা এসব জাত-পাতের ঊর্ধ্বে উঠে সংসার পাতে। এ বিষয়টি উদ্দীপকের মূলভাবের সঙ্গে সাদৃশ্যপূর্ণ। কিন্তু এ ছাড়াও আলােচ্য গল্পে মৃত্যুঞ্জয়ের খুড়ার ষড়যন্ত্র, গ্রামবাসীর অমানবিকতার বিষয়গুলােও উঠে এসেছে, যেগুলাে উদ্দীপকে নেই।

উদ্দীপকে ধর্মের দোহাই দিয়ে জাতিভেদ সৃষ্টি না করার কথা বলা হয়েছে। এখানে জন্ম-মৃত্যুর কাছে সবাই সমান এ কথা বলা হয়েছে। `বিলাসী’ গল্পে জাতিভেদের রূপটি স্পষ্ট হয়ে উঠলেও.এ গল্পের বড় শিক্ষা হলাে অসাম্প্রদায়িক মনােভাব ও মানবিক হওয়া। তবে গল্পের অন্যান্য বিষয় যেমন— তল্কালীন সমাজব্যবস্থা, শিক্ষাব্যবস্থা, সমাজের নানা অসংগতি ইত্যাদি উদ্দীপকে অনুপস্থিত। তাই বলা যায়, প্রশ্নোক্ত মন্তব্যটি যথার্থ।

সারকথা : উদ্দীপকে সাম্যচেতনা ও মানবতাবাদের প্রতি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। বিলাসী’ গল্পেও লেখক সমাজের জাতিভেদের অসারতাকে তুলে ধরেছেন। তবে গল্পের অন্যান্য বিষয় যেমন— তকালীন সমাজব্যবস্থা, শিক্ষাব্যবস্থা, সমাজের নানা অসংগতি ইত্যাদি উদ্দীপকে অনুপস্থিত। তাই মন্তব্যটিকে যথার্থ বলা যায়।

আপনি ইতিমধ্যে আমাদের সাইটের মাধ্যমে বিলাসী গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর ২০২২ সম্পর্কিত এই আর্টিকেলে ১টি পূর্ণাঙ্গ প্রশ্নোত্তর পড়া সম্পন্ন করেছেন। চলুন এ সম্পর্কিত আরও প্রশ্নের উত্তর গুলো দেখে নেওয়া যাক।

বিলাসী গল্পের সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর

সৃজনশীল প্রশ্ন নম্বর ২

অপু বাড়ি মধ্য হইতে বাহির হইয়া আসিলে দুর্গা তাহার হাত হইতে মালা লইয়া আমগুলি বেশ করিয়া মাখিল,- বলিল, নে হাত পাত।। – তুই অতগুলাে খাবি দিদি? – অতগুলি বুঝি হলাে? এই তাে ভারি বেশি যা, আচ্ছা নে আর দু’খানা- বাঃ, দেখতে বেশ হয়েচে রে, একটা লঙ্কা আনতে | পারিস? আর একখানা দেবাে তা হলে – লঙ্কা কী করে পাড়বাে দিদি? মা যে তক্তার ওপর রেখে দ্যায়, আমি যে নাগাল পাই নে? – তবে থাকগে যা- আবার ওবেলা আনবাে এখন— পটলিদের ডােবার ধারের আমগাছটায় গুটি যা ধরেচে- দুপুরের রােদে তলায় ঝরে পড়ে-

ক. ‘বিলাসী’ গল্পের ন্যাড়ার কয়টি শখ ছিল?
খ. “অন্নপাপ। বাপরে! এর কি আর প্রায়শ্চিত্ত আছে।”- ব্যাখ্যা কর।
গ. উদ্দীপকের চরিত্রগুলাে বিলাসী’ গল্পের কোন বিষয়কে নির্দেশ করে? ব্যাখ্যা কর।
ঘ, “উদ্দীপকটি বিলাসী’ গল্পের সম্পূর্ণ ভাব ধারণ করতে ব্যর্থ হয়েছে”- মন্তব্যটি সম্পর্কে তােমার যৌক্তিক মতামত দাও।

সৃজনশীল প্রশ্ন নম্বর ২ এর উত্তর সমূহ

ক উত্তরঃ ‘বিলাসী’ গল্পের ন্যাড়ার দুটি শখ ছিল।

খ উত্তরঃ প্রশ্নোক্ত উক্তিটির মধ্য দিয়ে বিলাসীর হাতে মৃত্যুঞ্জয়ের ভাত খাওয়াকে গ্রামবাসী অন্নপাপ বলে অভিহিত করেছে। | বিলাসী মৃত্যুপথযাত্রী মৃত্যুঞ্জয়কে সেবা-শুশ্রুষার মাধ্যমে সারিয়ে তুলেছিল। এর প্রতিদানে মৃত্যুঞ্জয় বিলাসীকে ভালােবেসে বিয়ে করে।

বিলাসী ছিল মালােপাড়ার এক সাপুড়েকন্যা। যে কারণে মৃত্যুঞ্জয়ের পাড়া-প্রতিবেশীরা বিষয়টি সহজেই মেনে নিতে পারেনি। তদুপরি তারা যখন জানতে পারল মৃত্যুঞ্জয় বিলাসীর হাতে রান্না করা ভাত খেয়েছে তাতে তারা আরও ক্ষিপ্ত হয়ে উঠল। ছােট জাতের কারও হাতে রান্না করা ভাত খাওয়াকে তারা অন্নপাপ হিসেবে সাব্যস্ত করত। তৎকালীন স্বার্থান্ধ ও কুসংস্কারাচ্ছন্ন সমাজবাসীর বিশ্বাস ছিল অন্নপাপের কোনাে প্রায়শ্চিত্ত নেই। তাই বিয়ের কিছুদিন পর মৃত্যুঞ্জয় যখন সাপের ছােবলে মৃত্যুবরণ করল, তখন গ্রামবাসী প্রচার করল অন্নপাপের কারণেই মৃত্যুঞ্জয়ের এমন অপমৃত্যু হয়েছে।

সারকথা : মৃত্যুঞ্জয়ের সাপের দংশনে মৃত্যু হলেও বিলাসীর হাতে রান্না করা খাবার খাওয়ায় তার এমন দুর্দশা হয়েছে বলে গ্রামবাসী প্রশ্নোক্ত উক্তিটি করে।

গ উত্তরঃ উদ্দীপকের চরিত্রগুলাে বিলাসী’ গল্পের কথক ও তার সঙ্গীদের শৈশবস্মৃতিকে নির্দেশ করে। প্রকৃতি মানুষের পরম বন্ধু। মানুষ প্রকৃতির অকৃত্রিম দানেই বেড়ে ওঠে। প্রকৃতি মানুষকে নানাভাবে স্বস্তি-শান্তি দেয়। প্রকৃতির কোলের মধ্যে থেকে যারা শৈশবকাল অতিবাহিত করে তারা খুবই ভাগ্যবান।

উদ্দীপকে প্রকৃতিঘনিষ্ঠ গ্রামীণ জীবনে দুই ভাই-বােনের কৈশােরের নানা সুখের মুহূর্ত তুলে ধরা হয়েছে। এখানে প্রকৃতির অপার লীলার মাঝে দুই ভাই-বােনের গ্রামীণ ফলফলাদি খাওয়ার আনন্দ ফুটে উঠেছে, যা মানুষের চিরায়ত শৈশবকেই স্মরণ করিয়ে দেয়।

বিলাসী’ গল্পে কথক তাদের শৈশবের কথা উল্লেখ করেছে। সেখানে সে শৈশবে প্রকৃতির মাঝে তাদের বিচরণের স্মৃতি উল্লেখ করেছে। তারা প্রকৃতির সৌন্দর্য সন্ধানে কীভাবে নিজেদের নিয়ে ব্যস্ত থাকত, কীভাবে অন্যের বাগানে ঘুরে নানা ধরনের ফলমূল সংগ্রহ করত, পুকুরে মাছ ধরত ইত্যাদি বিষয় ফুটে উঠেছে। এভাবে উদ্দীপকের চরিত্রগুলাে ‘বিলাসী’ গল্পের গল্পকথক ও তার সঙ্গীদের শৈশবস্মৃতিকে নির্দেশ করে।

সারকথা : উদ্দীপকে দুই ভাই-বােনের শৈশবের দুরন্তপনাকে তুলে ধরা হয়েছে, যা বিলাসী’ গল্পের কথক ও তার সঙ্গীদের শৈশবস্মৃতিকে নির্দেশ করে।

প্রিয় পাঠক হুবুহু সৃজনশীল প্রশ্ন গুলো খবু কম কমন পড়তে দেখা যায় । তাই এই পোষ্ট বিলাসী গল্পের সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর ২০২২ pdf এর পাশাপাশি এ সম্পর্কিত মেইন বই থেকে আরও বিস্তারিত এবং খুঁটিনাটি জেনে রাখুন । মূল বই থেকে ও এই পাঠ্য যদি আপনি পড়ে রাখেন তাহলে প্রশ্ন যেভাবেই আসুক উত্তরটা আপনার জন্য সহজ হতে পারে। 

ঘ উত্তরঃ “উদ্দীপকটি বিলাসী’ গল্পের সম্পূর্ণ ভাব ধারণ করতে ব্যর্থ হয়েছে”– মন্তব্যটি সম্পর্কে আমি একমত। প্রকৃতির মাঝে মানুষের আত্মার চাহিদা অন্তর্নিহিত থাকে। প্রকৃতি তার নানা উপচারে মানুষকে সব রকম অশান্তি ও দুশ্চিন্তা থেকে মুক্ত রাখে। মানুষ প্রকৃতির মাঝেই অনাবিল আনন্দ খুঁজে পায় ।

উদ্দীপকে দুই ভাই-বােনের মধুর শৈশবের দিকটি প্রকাশ পেয়েছে। গ্রাম্য শৈশব যেমন করে উপভােগ করা যায়, ঠিক সেভাবেই প্রকৃতির মাঝে তারা নিজেদের বিলিয়ে দিয়েছে। বিলাসী’ গল্পে কথক ও তার সঙ্গীরা শৈশবে প্রকৃতির মাঝে নিজেদের নিয়ে কীভাবে মেতে উঠত তার বর্ণনা রয়েছে। তারা বাগানে বাগানে ঘুরে নানা ধরনের ফল সংগ্রহ করত। কোন ফল কোন সময়ে কী আকার ধারণ করে সেই খবর নিয়ে তারা ব্যস্ত থাকত।

এছাড়াও এ গল্পে জাতিভেদ ও নর-নারীর শাশ্বত ভালােবাসার বিষয়টি স্থান পেয়েছে, যা উদ্দীপকে অনুপস্থিত। উদ্দীপকে কেবল প্রকৃতির সঙ্গে মিলে-মিশে থাকা দুটি শিশুর জীবনের হাসি-আনন্দের দিকটি তুলে ধরা হয়েছে। অন্যদিকে ‘বিলাসী’ গল্পে কিশােরদের প্রকৃতিকেন্দ্রিক শৈশবসহ জাত-ধর্মের পার্থক্য, অন্যের সম্পদের প্রতি লােভ, মানুষের প্রতি মানুষের অমানবিকতা প্রভৃতি বিষয় তুলে ধরা হয়েছে, যেগুলাে উদ্দীপকে প্রকাশ পায়নি। এসব দিক বিচারে তাই বলা যায়, উদ্দীপকটি বিলাসী’ গল্পের সম্পূর্ণ ভাব ধারণ করতে ব্যর্থ হয়েছে।

সারকথা : উদ্দীপকে শুধু দুই ভাই-বােনের শৈশবের দুরন্ত দিনগুলাের কথা বলা হয়েছে, যা গল্পের কথকের শৈশবস্মৃতিকে নির্দেশ করে মাত্র । S এছাড়াও গল্পে বহুমুখী বিষয় ও ভাব তুলে ধরা হয়েছে, যেগুলাে উদ্দীপকে অনুপস্থিত।

ধন্যবাদ জানাই আপনার অনুসন্ধান বিলাসী গল্পের সৃজনশীল প্রশ্ন ও উত্তর ২০২২ এর জন্য এবং আমাদের সাইটে এসে পড়ার জন্য। আশাকরি আপনার কাঙ্খিত বিষয়টি আমাদের সাইটে খুঁজে পেয়েছেন। আপনাদের পাঠ্য সম্পর্কিত আর কি ধরণের পোষ্ট পেতে চান তা আমাদেরকে কমেন্ট বক্সে জানাতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button