পড়াশোনা

এ্যাসাইন মেন্ট কি? কিভাবে এ্যাসাইন মেন্ট করবেন?

একটি ছাত্র জীবনে যেরকম অ্যাসাইনমেন্ট করার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। ঠিক তেমনি ভাবে এ্যাসাইন মেন্ট কি (Assignment in Bangla) এই প্রশ্নের সম্মুখীন অবশ্যই আপনাকে হতে হয়েছে। আর সম্ভবত কারণে আপনি এই এ্যাসাইন মেন্ট কি সেই বিষয় টি জানার জন্যই গুগলে সার্চ করেছেন। 

তো আপনি যদি সত্যিকার অর্থেই এই বিষয় টি সম্পর্কে জানার জন্য গুগলে সার্চ করে থাকেন। তাহলে আপনি একবারে সঠিক জায়গা তে চলে এসেছেন। কারণ আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেলে আমি আপনাকে এ্যাসাইন মেন্ট সম্পর্কিত যাবতীয় বিষয় গুলো জানিয়ে দেয়ার চেষ্টা করব।

সত্যি বলতে একটা সময় আমি নিজেও জানতাম না যে অ্যাসাইনমেন্ট কি তাই আমিও আপনার মত গুগলে সার্চ করতাম যে, Assignment meaning in bengali. কিন্তু আমি যে সময় এই বিষয়ে সার্চ করতাম। সেই সময়ে কোন সঠিক উত্তর গুগল থেকে খুজে পেতাম না। কিন্তু এই এ্যাসাইন মেন্ট কি, এই বিষয় টি জেনে নেয়াটা আমার জন্য অতি প্রয়োজনীয় ছিল।

আর যেহেতু আপনি এই ওয়েবসাইটে ক্লিক করেছেন। সেহেতু আজকে আপনাকে আর নিরাশ হতে হবে না। কারণ আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে জানিয়ে দেয়ার চেষ্টা করব যে। এ্যাসাইন মেন্ট কি, কিভাবে এ্যাসাইন মেন্ট করবেন, এবং কেন এ্যাসাইন মেন্ট করা হয়। তাহলে চলুন এবার মূল আলোচনা তে ফিরে যাওয়া যাক।

এ্যাসাইন মেন্ট কি? | What is Assignment?

যদি আপনি একান্ত ভাবেই জেনে নিতে চান যে, এ্যাসাইন মেন্ট কি। তাহলে আমি আপনাকে খুব সহজ ভাবে বলব যে। আপনি যখন ছাত্র অবস্থায় থাকবেন। তখন আপনাকে আপনার শিক্ষক নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে যে কোনো ধরনের কাজ দিবে। মূলত শিক্ষকের থেকে ছাত্রদের জন্য এই ধরনের কাজ কে বলা হয়ে থাকে এ্যাসাইন মেন্ট। তবে শুধুমাত্র আপনার স্কুলের শিক্ষক নয়। বরং আপনার গৃহ শিক্ষক যদি আপনাকে এই ধরনের কাজ দেয়। তাহলে তাকে বলা হবে, এ্যাসাইন মেন্ট।

Read More:   পদার্থের পরিবর্তন, রাসায়নিক বিক্রিয়ার শ্রেণিবিভাগ (অ্যাসাইনমেন্ট)

কেন এ্যাসাইন মেন্ট করা হয়?

এ্যাসাইন মেন্ট কি উপরের আলোচনা থেকে আপনি সে সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা পেয়ে গেছেন। তো এই বিষয়ে ধারণা পাওয়ার পর আপনার মনে একটি প্রশ্ন জেগে থাকতে পারে। আর সেই প্রশ্ন টি হল, কেন এসাইনমেন্ট করা হয়। অর্থাৎ স্কুলের শিক্ষক কিংবা গৃহ শিক্ষকের মাধ্যমে যেসব অ্যাসাইনমেন্ট হয়। সেই এসাইনমেন্ট এর উদ্দেশ্য কি। চলুন এবার তাহলে এই বিষয়ে পরিষ্কার ধারণা নেয়া যাক।

তো আপনি যদি একান্ত ভাবেই জানতে চান যে, কেন এসাইনমেন্ট করানো হয়। তাহলে আমি আপনাকে এক কথায় উত্তর প্রদান করব যে। এসাইনমেন্ট করার মূল উদ্দেশ্য হলো, ছাত্রদের মধ্যে পড়াশোনার আগ্রহ তৈরি করা। কারণ যদি তাদের মধ্যে এসাইনমেন্ট প্রদান করা না হয়। সেক্ষেত্রে তারা একটা ভুল ধারণা নিয়ে বড় হবে। আর সেই ভুল ধারণাটি হল “পড়াশুনা শেখানোর কাজ শুধুমাত্র শিক্ষকের তাদের নয়”।

এর পাশাপাশি যখন শিক্ষকের দ্বারা ছাত্রদের অ্যাসাইনমেন্ট প্রদান করা হয়। তখন ছাত্রদের মধ্যে একটা দায়িত্বের সূচনা হয়। কারণ যখন শিক্ষক বলে যে, উক্ত এসাইনমেন্ট টি নির্দিষ্ট তারিখে জমা দিতে হবে। তখন ছাত্রদের মধ্যে ঐ কাজ টি করার একটা আগ্রহ তৈরি হয়। এবং এই আগ্রহ থেকে তাদের মধ্যে সৃজনশীলতা বৃদ্ধি পায়। মূলত এইসব কারণে এসাইনমেন্ট করা হয়ে থাকে।

এ্যাসাইন মেন্ট এর সুবিধা কি কি?

পাঠক, সম্ভবত আপনি এসাইনমেন্ট কি সে বিষয়ে জানার জন্য গুগলে সার্চ করেছেন। তবে এই বিষয় টি জানার পাশাপাশি আপনাকে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। আর সেই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় টি হলো, এসাইনমেন্ট এর সুবিধা কি কি। মূলত একজন স্টুডেন্ট যখন অ্যাসাইনমেন্ট করবে। 

Read More:   সুভা গল্প অনুসরণে বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন মানুষের সংবেদনশীলতা ও অনুভূতি প্রবণতা বিশ্লেষণ

তখন সেই স্টুডেন্ট এর বিভিন্ন দিক থেকে দক্ষতার বৃদ্ধি পাবে। এবং সেই স্টুডেন্ট এর সৃজনশীলতা বৃদ্ধি পাবে। এর বাইরেও এসাইনমেন্ট এর আরো অনেক ধরনের সুযোগ সুবিধা রয়েছে। চলুন এবার তাহলে সেই এসাইনমেন্ট এর সুবিধা গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত ভাবে জেনে নেয়া যাক।

  1. যখন একটি ছাত্র এসাইনমেন্ট করবে। তখন সেই ছাত্রের জ্ঞান বৃদ্ধি পাবে।
  2. এসাইনমেন্ট এর মধ্যে মূলত লেখালেখি করতে হয়। এর ফলে একজন ছাত্রের মধ্যে থাকা লেখালেখির দক্ষতা আরো বৃদ্ধি পাবে।
  3. মূলত কোন একটি বিষয় কে খুব ভালো পারফরম্যান্সের সাহায্য প্রদর্শন করার মতো সক্ষমতা তৈরি হবে।
  4. পরীক্ষা ছাত্রদের মধ্যে এক ধরনের ভয় তৈরি করে। কিন্তু একজন ছাত্র যখন নিয়মিত এসাইনমেন্ট করবে। তখন সেই ছাত্রের আর পরীক্ষা নিয়ে ভয় হবে না।
  5. কোন কিছুকে ভালো ভাবে বিশ্লেষণ করার পরে মন্তব্য দেয়ার মত ধৈর্য তৈরি হবে।
  6. বাস্তব জীবনে নতুন নতুন জ্ঞান অর্জন করতে পারবে। এবং পরবর্তী সময়ে এই অর্জিত জ্ঞান গুলো কে নিজের জীবনে প্রয়োগ করতে পারবে।

তো আপনি যদি এই এসাইনমেন্ট করার সুবিধা গুলো সম্পর্কে না জেনে থাকেন। তাহলে অবশ্যই আপনার উপরে আলোচিত আলোচনা টি দেখে নেওয়া উচিত। কারণ এই আলোচনায় আমি আপনাকে জানিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছি যে, এ্যাসাইন মেন্ট এর সুবিধা গুলো কি কি।

এ্যাসাইন মেন্ট লেখার নিয়ম

এতক্ষণ এর আলোচনায় আপনি জানতে পারলেন যে এসাইনমেন্ট কি এবং কেন এসাইনমেন্ট করা হয়। এর পাশাপাশি আমি আপনাকে এসাইনমেন্ট এর সুবিধা গুলো সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা দেয়ার চেষ্টা করেছি। এখন এই বিষয় গুলো জানার পাশাপাশি আপনাকে অবশ্যই এসাইনমেন্ট লেখার নিয়ম গুলো সম্পর্কে জেনে নিতে হবে। 

Read More:   চারপাশের পশুপাখির প্রতি দায়িত্ব নিরূপণ (এসাইনমেন্টর উত্তর)

কারণ ছাত্র অবস্থায় আপনি যদি এসাইনমেন্ট লেখার নিয়ম গুলো সম্পর্কে না জেনে থাকেন। তাহলে কিন্তু আপনি অন্যান্য ছাত্রদের মতো সুন্দর করে এসাইনমেন্ট লিখতে পারবেন না। চলুন এবার তাহলে এ্যাসাইন মেন্ট লেখার নিয়ম গুলো সম্পর্কে জেনে নেয়া যাক।

তো আপনি যদি মানসম্মত এ্যাসাইন মেন্ট লিখতে চান। তাহলে আপনাকে বেশ কিছু নিয়ম মেনে চলতে হবে যেমন:

  1. প্রথমত আপনাকে a4 সাইজের কাগজ নিতে হবে।
  2. এরপর আপনার উক্ত কাগজে লেখার জন্য কালো রঙের কলমের প্রয়োজন হবে।
  3. যেহেতু আপনি a4 সাইজের কাগজে লিখবেন। সেহেতু অবশ্যই আপনার নিকট স্কেল এবং পেন্সিল থাকতে হবে।
  4. এরপরে আপনাকে সেই বই টি কাছে রাখতে হবে। যে বইয়ের মধ্যে আপনার অ্যাসাইনমেন্ট রয়েছে।
  5. সবশেষে আপনি আপনার বইয়ে থাকা এসাইনমেন্টটি উক্ত a4 কাগজের মধ্যে লিখবেন।

মূলত একজন ছাত্র হয়ে কিভাবে আপনি এসাইনমেন্ট লিখবেন। সেই বিষয় গুলো বুঝিয়ে দেওয়ার জন্যই আমি উপরের আলোচনায় এসাইনমেন্ট লেখার নিয়ম গুলো উল্লেখ করেছি। আর একজন ছাত্র হিসেবে অবশ্যই আপনার এই নিয়ম গুলো দেখে নেয়া উচিত।

আমাদের কিছু কথা

প্রিয় পাঠক এতদিন আপনি যে প্রশ্নের উত্তর খুঁজে এসেছেন। সেই প্রশ্নের উত্তর আজকে পেয়ে গেছেন। কারণ আজকের এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে এসাইনমেন্ট কি। সে সম্পর্কে পরিষ্কার ভাবে ধারণা দেয়ার চেষ্টা করেছি। 

এবং এই বিষয়টি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার পাশাপাশি। আমি আপনাকে জানিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেছি যে। এসাইনমেন্ট করার কারণ কি। এবং এসাইনমেন্ট এর সুবিধা গুলো কি কি।

আর সবশেষে আমি আপনাকে বলে দেয়ার চেষ্টা করেছি যে। ছাত্র হিসেবে কিভাবে আপনি এসাইনমেন্ট লিখবেন। সেই বিষয়টি জানিয়ে দেওয়ার জন্য। আমি আপনার সাথে এসাইনমেন্ট লেখার নিয়ম গুলো শেয়ার করেছি।

Nironjon Roy

হ্যালো পাঠক, আমি Roy. আমি দীর্ঘদিন থেকে বাংলা কন্টেন্ট রাইটিং এর কাজ করে আসছি। আমি যথাযথ চেস্টা করি নিজের জ্ঞানটুকু অন্যের মাঝে বিলিয়ে দেয়ার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button