প্রশ্নোত্তর

হিন্দু ধর্মের আদি পিতা ও মাতার নাম জেনে নিন

আমরা যারা সনাতন ধর্মাবলম্বী আছি। তারা বেশ ভালো করে জানি যে, এই পৃথিবীর মধ্যে সবচেয়ে প্রাচীনতম ধর্মের নাম হলো সনাতন ধর্ম। আর যুগের পর যুগ ধরে এই সনাতন ধর্ম বিরাজমান রয়েছে। তবে আপনি কি জানেন হিন্দু ধর্মের আদি পিতা ও মাতার নাম কি। হয়তোবা আপনি গুগল এর মধ্যে সার্চ করেছেন যে, হিন্দু ধর্মের আদি পিতার নাম কি এবং হিন্দু ধর্মের আদি মাতার নাম কি। চলুন তবে বিস্তারিত জেনে নিন একই পোষ্টে।

হিন্দু ধর্মের আদি পিতার নাম কি?

তো সবার আগে আপনাকে যে বিষয় টি সম্পর্কে জানতে হবে। সেটি হলো যে, হিন্দু ধর্মের আদি পিতার নাম কি। আর আমি উপরে এই বিষয় টি সম্পর্কে আপনাকে স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছি যে। হিন্দু ধর্মের আদি পিতার নাম হল মনু। তবে প্রশ্ন এখানে থেকেই যাচ্ছে যে, এই হিন্দু ধর্মের আদি পিতা মনু আসলে কে। তো এই ‘মনু’- কে এই বিষয় টি বোঝার আগে আপনাকে জানতে হবে যে এই মনু নামের অর্থ কি। মূলত এই মনু নামের একটি বিশেষ অর্থ আছে। আর সেই অর্থ টি হলো যে, প্রত্নতাত্ত্বিক মানুষ বা মানবজাতির পূর্ব পুরুষ। আবার এই মনু শব্দের অর্থ হিসেবে প্রথম মানুষ কে নির্দেশ করা হয়ে থাকে। আর আপনি যদি সংস্কৃত শব্দের অর্থ খুঁজে থাকেন। তাহলে আপনি স্পষ্ট ভাবে দেখতে পারবেন যে। সেই সংস্কৃত ভাষায় “মনু”- শব্দের অর্থ হলো “মানব”। হিন্দু ধর্মের আদি পিতা ও মাতার নাম।

হিন্দু ধর্মের আদি মাতার নাম কি?

উপরের আলোচনা থেকে আপনি হিন্দু ধর্মের আদি পিতার নাম কি। এবং সেই নামের অর্থ কি সে সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। তবে এই বিষয় টি জানার পাশাপাশি আপনাকে হিন্দু ধর্মের আদি মাতার নাম কি। সেই বিষয় টি সম্পর্কে একবারে পরিষ্কার ধারণা রাখতে হবে। তো হিন্দু ধর্মের আদি মাতার নাম হলো, “শতরূপা”। তবে এখানে একটা কথা বলে রাখা ভালো যে। হিন্দু ধর্মের আদি পিতা এবং হিন্দু ধর্মের আদি মাতা সাধারণ মানুষের মতো জন্ম নেয়নি। কেননা যখন একটি মানুষ জন্ম গ্রহণ করে। তখন সে মানুষ টি যোনিপথ এর মাধ্যমে এই পৃথিবীর আলো দেখতে পারে। কিন্তু হিন্দু ধর্মের আদি পিতা মনু এবং হিন্দু ধর্মের আদি মাতা শতরূপা ব্রহ্মা থেকে সৃষ্টি হয়েছিল। এবং তারা যখন এই পৃথিবী তে  এসেছিল। তখন তারা পতি পত্নি রূপে এই পৃথিবী তে সৃষ্টি হয়েছিল। হিন্দু ধর্মের আদি পিতা ও মাতার নাম।

হিন্দু ধর্মের ভগবান কে?

পূর্বের অনুচ্ছেদগুলোতে আপনি হিন্দু ধর্মের আদি পিতা ও মাতার নাম সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। যদি আপনি একজন হিন্দু ধর্মাবলম্বী হয়ে থাকেন। তাহলে অবশ্যই আপনাকে জেনে নিতে হবে যে। হিন্দু ধর্মের ভগবান কে। কেননা যদি আপনাকে এই প্রশ্ন টি করা হয়। এবং আপনি যদি সেই প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে না পারেন। তাহলে আপনাকে বেশ লজ্জা জনক একটি পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে হবে। তো উপরের আলোচনা তে আপনি হিন্দু ধর্মের আদি পিতার নাম। এবং হিন্দু ধর্মের আদি মাতার নাম সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। এবং সেই আলোচনার মাধ্যমে আমি আপনাকে স্পষ্ট ভাবে বলার চেষ্টা করেছি যে। আমাদের মানব জাতির সূচনা তখন থেকেই হয়েছিল। যখন পরম শক্তিশালী ব্রহ্মা, মনু এবং শতরূপা নামের দুইজন ব্যক্তি কে এই পৃথিবীর মধ্যে সৃষ্টি করেছিল। তো এখন যদি আপনাকে প্রশ্ন করা হয় যে, বলুন তো হিন্দু ধর্মের ভগবান কে। তাহলে আপনার সেই প্রশ্নের উত্তরটা কি হবে। সেটা অবশ্যই নিচে কমেন্ট করে জানিয়ে দিবেন।

তো আপনি যদি একজন হিন্দু হয়ে আপনার হিন্দু শাস্ত্র গুলো নিয়মিত পাঠ করে থাকেন। তাহলে আপনার অবশ্যই জানা থাকবে যে, বর্তমানে আমরা যত গুলো দেব-দেবীর পূজা অর্চনা করি। তার সবকিছুর সৃষ্টির মূলে রয়েছেন পরমহংসদেব ব্রহ্মা। কারণ আমরা সব হিন্দু শাস্ত্রের মধ্যে দেখতে পাই যে। সব ধরনের দেবতা মূলত ব্রহ্মার রূপের বহিঃপ্রকাশ। তাই আপনি যদি অন্যান্য সব দেব দেবী কে পাওয়ার কথা চিন্তা করেন। তাহলে আপনাকে এ বিষয়ে নিশ্চিত হতে হবে যে। আপনি শুধুমাত্র ব্রহ্মা কে পাওয়ার জন্য চেষ্টা করছেন। অর্থাৎ আপনি যদি দেবী দুর্গার আরাধনা করেন। তাহলে আপনি সেই দেবী দুর্গার মাধ্যমে ব্রহ্মা কে আরাধনা করছেন। আবার আপনি যদি বিদ্যার দেবী সরস্বতীর আরাধনা করেন। তাহলেও আপনি আসলে ব্রহ্মার আরাধনা করছেন। হিন্দু ধর্মের আদি পিতা ও মাতার নাম।

তবে বিষয়টা অবাক করার মত হলেও সত্য যে। বর্তমান সময়ে হিন্দু সমাজ এর সকল ধরনের মানুষ বিভিন্ন ধরনের দেব দেবীর পূজা আরাধনা করে থাকে। যেমন, কেউ কালী পূজা করে, আবার কেউ দুর্গাপূজা করে, আবার কেউ মনসা পূজা করে। এভাবে বিভিন্ন রকমের মানুষ বিভিন্ন দেব-দেবীদের পূজা করে থাকে। কিন্তু এই শিক্ষিত এবং অশিক্ষিত হিন্দুরা এই কথা টি ভুলে গেছে যে। তাদের একমাত্র কাজ হল ঈশ্বরের উপাসনা করা। আর বেদের মধ্যে এটা স্পষ্ট করে উল্লেখ করা আছে যে। “ঈশ্বর শুধুমাত্র একজন, সেই ঈশ্বরের মতো আর অন্য কেউ নেই”। আর সে কারণে শুধুমাত্র আমাদের উচিত যে ঈশ্বরের আরাধনা করা। আরো জানলে অবাক হয়ে যাবেন যে, বর্তমান সময়ে আমরা যে মূর্তি পূজা করছি। সেই মূর্তি পূজার প্রচলন করেছিল প্রাচীন যুগের ঋষি মুনিরা।

এর কারণ টা হলো হিন্দু ধর্ম হলো সবচেয়ে প্রাচীন একটি ধর্ম। এবং সেই প্রাচীনতম দিন গুলো তে হিন্দু ধর্মের যেসব পবিত্র ধর্মগ্রন্থ রয়েছে। যেমন, বেদ, গীতা ইত্যাদি। তো সেই সময়ে এই ধর্মগ্রন্থ গুলো পড়ার অধিকার সব ধরনের মানুষের ছিল না। আর যখন সেই প্রাচীনতম দিন গুলো তে ঋষি মুনিরা এই ধরনের হিন্দু ধর্মের পবিত্র ধর্মগ্রন্থ গুলো পড়তো। এবং তারাই এই মূর্তি পূজার সর্বপ্রথম সূচনা করেছে। তবে প্রশ্ন এখানে থেকেই যাচ্ছে যে, হিন্দু ধর্মের ভগবান কে। আসলে হিন্দু ধর্মের ভগবান কে সেটা এখন পর্যন্ত কেউ দেখতে পারেনি। কেননা তিনি হলেন নিরাকার, তিনি এক এবং অবিনশ্বর। যার কোন সৃষ্টি নেই, যার কোন ধ্বংস নেই। তিনি হলেন হিন্দু ধর্মের প্রকৃত ভগবান।

হিন্দু ধর্মের আদি পিতা ও মাতার নাম

দেখুন আপনি যদি খুব সংক্ষিপ্ত আকারে এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে চান। তাহলে আমি আপনাকে বলব যে, হিন্দু ধর্মের আদি পিতার নাম হলো মনু। এবং হিন্দু ধর্মের আদি মাতার নাম হল শতরূপা। তো এখন যদি প্রশ্ন জাগে যে, এই হিন্দু ধর্মের আদি পিতা মনু কে। এবং হিন্দু ধর্মের আদি মাতা শতরুপা কে। তাহলে কি আপনি সেই প্রশ্নের উত্তর দিতে পারবেন। হয়তোবা এই প্রশ্নের উত্তর খোঁজার জন্য আপনাকে আরও একদিন গুগলের মধ্যে সার্চ করতে হবে। আর আপনাকে যাতে করে বারবার এই বিষয় গুলো জানার জন্য ইন্টারনেটের মধ্যে ঘাটাঘাটি করতে না হয়। সে কারণে আজকের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমি আপনাকে প্রাচীনতম এই হিন্দু ধর্মের প্রাচীন ইতিহাস নিয়ে বিস্তারিত বলার চেষ্টা করেছি।আশাকরি আজকের আলোচনার বিষয় হিন্দু ধর্মের আদি পিতা ও মাতার নাম সম্পর্কে আমাদের এই আর্টিকেলে বিষদ জানতে সক্ষম হয়েছেন। 

Back to top button